মালয়েশিয়ার মসজিদ থেকে সাত জন অবৈধ অভিবাসী গ্রেফতার

মালয়েশিয়ার সরকার অ’বৈধ অভিবাসীদের বি’রু’দ্ধে সবসময়ই জিরো ট’লারে’ন্স দিয়ে আসছে। একদিকে দেয়া হয়েছে বৈধ হওয়ার সুযোগ। অন্যদিকে চালানো হচ্ছে একের পর এক ধ’ড়-পাক’ড় অ’ভিযা’ন।

মালয়েশিয়ার আরেকটি আইন প্র’য়োগকারী সংস্থা ব্যাটালিয়ন ৪ জেনারেল অপারেশন ফোর্স (পিজিএ) গত শুক্রবার ২৫শে ডিসেম্বর সকালে শাহ আলম জেলার কাপারের টোক মুদার জাম্পান সুঙ্গাই সারডাং জালান মসজিদে অ’ভি’যান চালিয়ে সাতজন অ’বৈধ অভি’বাসীকে (পাতি) গ্রে’প্তার করেছে।

তাদের সকলেই বৈ’ধ ভ্রমণের দলিল বা ভিসা প্রদর্শন করতে ব্যর্থ হওয়ায় সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে তিন মহিলাসহ সাতজনকে গ্রে’প্তার করা হয়েছিল। পিজিএ ব্যাটালিয়ন ৪ এর কমান্ডিং অফিসার, সুপারিনটেনডেন্ট রিজাল মোহাম্মদ জানান, আটক চারজন ইন্দোনেশিয়ার পুরুষ এবং তিন মহিলা মিয়ানমারের নাগরিক।

অ’বৈধ অভিবাসীদের (পাতি) মধ্যে গ্রে’ফতারকৃত সকলের বয়স ২৫ থেকে ৩৩ বছর। আরও তদন্তে দেখা গেছে যে তিনজন মহিলা স্বীকার করেছেন যে তারা সবেমাত্র নৌকায় করে ইন্দোনেশিয়ার ডুমাই থেকে এসেছেন এবং সুনগাই সেরডাঙের তীরে অবতরণ করেছিলেন।

এদিকে, ইন্দোনেশিয়ার চারজন লোক আন-গেজেটেড রাস্তাটি যা সমুদ্রপথ দিয়ে বেরিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে বলে বিশ্বাস করা হচ্ছে বলে তিনি আজ এক বিবৃ’তি’তে বলেছেন। তিনি বলেন, অ’ভিবাস’ন আইন ১৯৫৯/৬৩ অনুসারে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য গ্রে’প্তারকৃ’তদের এবং আ’টককৃ’তদের কাপার থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি বলেছিলেন যে চলমান ম’হামা’রী ভাইরা’সটির বি’স্তার রোধে সমস্ত গ্রে’প্তারকৃ’ত কো’ভি’ড -১’৯ এর স্ক্রিনিং পরীক্ষা করা হবে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*