মেয়র তাপস নোংরামি করাচ্ছে দেলুকে দিয়ে: সাঈদ খোকন

গুলিস্তানের ফুলবাড়িয়া সিটি সুপার মার্কেটে নকশাবহির্ভূত দোকান বরাদ্দ দিয়ে ৩৪ কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনসহ সাতজনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে। ঢাকার মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আশেক ইমামের আদালতে মার্কেটের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন এই মামলা করেন। এই মামলাকে ‘ভাবমূর্তি নষ্টের অপচেষ্টা’ বলে আখ্যা দিয়েছেন সাঈদ খোকন। এর জন্য তিনি অভিযোগের আঙুল তুলেছেন ডিএসসিসি’র বর্তমান মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপসের দিকে।

সাঈদ খোকন বলছেন, ফুলবাড়িয়ার ওই মার্কেটের দোকান মালিক সমিতির নেতা দেলোয়ার হোসেন দুলু ওরফে দেলুকে দিয়ে তার ভাবমূর্তি নষ্টের চেষ্টা করছেন শেখ ফজলে নূর তাপস।মঙ্গলবার (২৯ ডিসেম্বর) মেয়র হানিফ মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা মো. হাবিবুল ইসলাম সুমনের পাঠানো এক বার্তায় এ কথা বলা হয়েছে। ঢাকার প্রথম নির্বাচিত মেয়র আওয়ামী লীগ নেতা মোহাম্মদ হানিফের নামে গড়ে এই ফাউন্ডেশনের প্রতিষ্ঠাতা তারই ছেলে সাঈদ খোকন।

বার্তায় সাঈদ খোকন বলেন, সবাই বলছে— দেলোয়ার হোসেন দেলুকে দিয়ে এসব নোংরামি করাচ্ছে বর্তমান মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপস। এতে করে তার এবং তার দল ও পরিবারের ইমেজই নষ্ট হচ্ছে। ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরশনের মালিকানাধীন ওই মার্কেটটির তিনটি ব্লকে নকশাবহির্ভূত ৯১১টি দোকান ছিল। এসব দোকান উচ্ছেদে গত ৮ ডিসেম্বর অভিযান শুরু করেন ডিএসসিসির কর্মকর্তারা। ওই দিন কয়েক দফায় দোকান মালিক ও কর্মচারীদের সঙ্গে সংঘর্ষের পর শুরু হয় উচ্ছেদ অভিযান। অভিযানে প্রায় ৩০০ দোকান উচ্ছেদ করা হয়।

মামলার আরজিতে বলা হয়, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনসহ অন্য আসামিরা পরস্পর যোগসাজশে ফুলবাড়িয়া সিটি সুপার মার্কেটে নকশাবহির্ভূত স্থাপনা তৈরি করে দোকান বরাদ্দ দেয়ার ঘোষণা দেন। পরে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনে যোগাযোগ করলে তৎকালীন মেয়র অন্য আসামিদের সঙ্গে যোগাযোগ করে দোকান বরাদ্দ নেয়ার কথা বলেন।

এরপর ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা আসামি কামরুল হাসান, হেলেনা আক্তার ও আতিকুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগ করেন। মেয়র সাঈদ খোকনসহ অন্য আসামিরা ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের সঙ্গে প্রতারণা করে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। যদিও ক্ষতিগ্রস্ত দোকানিরা সেদিন অভিযোগ করেন, সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনের সময় (এক বছর আগে) নকশাবহির্ভূত এসব দোকান বৈধ করতে কয়েক কোটি টাকা দিয়েছেন তারা। দোকানগুলো থেকে ডিএসসিসি এতদিন ভাড়াও নিয়েছে।

তারা আরও অভিযোগ করেন, দোকান মালিক সমিতির সভাপতি দেলোয়ার হোসেন দেলু প্রায় দুই যুগ ধরে ওই তিনটি প্লাজা বা মার্কেট এককভাবে নিয়ন্ত্রণ করেছেন। তার নেতৃত্বেই অবৈধ এসব দোকান তৈরি করা হয়েছিল। সেই দোকান মালিক সভাপতি দেলুই এবার দোকান বরাদ্দে অনিয়মের অভিযোগ তুলে সাবেক মেয়র সাঈদ খোকনসহ সাত জনের বিরুদ্ধে মামলা করলেন।

মামলার অপর ছয় আসামি হলেন- ঢাকার দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের সাবেক প্রধান রাজস্ব কর্মকর্তা ইউসুফ আলী সরদার, সাবেক উপসহকারী প্রকৌশলী মাজেদ, কামরুল হাসান, হেলেনা আক্তার, আতিকুর রহমান ও ওয়ালিদ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*