সততার নজির, ১০ লাখ টাকা পেয়েও ফেরত দিলেন মহিলা সাফাইকর্মী

দীপাবলি (diwali) উপলক্ষে পূর্ব দিল্লি (delhi) পৌর কর্পোরেশনের এক মহিলা সাফাই কর্মী যখন মিষ্টির বাক্সে মিষ্টির বদলে ১০ লাখ টাকা পান। তিনি বুঝতে পারেন ভুল করেই তাকে এই টাকা দেওয়া হয়েছে। তখন সততার সাথে এই টাকা ফেরত দেয়। পূর্ব দিল্লির মেয়র নির্মল জৈন এই সততার জন্য তাকে সম্মান জানাবেন।

রশনি নামে এক কর্মচারীকে মিষ্টির বদলে টাকার ব্যাগ দিয়ে দেন এক বৃদ্ধ। সেই মহিলা বাড়ি ফিরে ব্যাগটি খুলে অবাক হয়ে যান, কারণ ওই ব্যাগটিতে ১০ লাখ টাকা ছিল। মহিলা সাথে সাথেও ওয়ার্ডের পরিদর্শককে এই তথ্য জানান। তারপরে তারা দুজনে মিলে কাউন্সিলর কাঞ্চন মহেশ্বরীর কার্যালয়ে পৌঁছে যান। সেই প্রবীণকেও সেখানে ডাকা হয়েছিল এবং ল দশ লক্ষ টাকা ফেরত দেওয়া হয়েছিল।

সোনু নন্দ নামের ঐ প্রবীন যখন তার টাকা ফেরত পান তিনি খুশি হয়ে রশনিকে ২১০০ টাকা ফেরত দেন। মহিলার সততা দেখে কাঞ্চন মহেশ্বরী বলেছিলেন, “রশনি পুরো ওয়ার্ডের পাশাপাশি পূর্ব পৌর কর্পোরেশনের নাম উজ্জ্বল করেছে। কর্পোরেশনের কর্মচারীদের সবসময় সন্দেহের চোখে তাকায়, তবে রোশনি প্রমাণ করেছেন যে কর্পোরেশন এর কর্মচারীরা কতখানি সৎ হয়। ”

সোনু নন্দা বলেছিলেন, তিনি মিষ্টির বাক্সে টাকা রেখেছিলেন, ভুল করে সেই বাক্সটাই রশনি দিয়ে দেন৷ পরে খুঁজতে শুরু করলেও সেই টাকা কিভাবে গায়েব হয়ে গেল তার কূল কিনারা পান নি। নিজের টাকা ফেরত পেয়ে তিনি খুব খুশি। রোশনির প্রশংসা করে সোনু নন্দ বলেছেন যে সততা আজও বেঁচে আছে।

রোশনি বলেছিলেন, “যদিও আমার পরিবারে হাজারো ঝামেলা রয়েছে, কিন্তু আমি তা কখনও অন্য কারো টাকা নিজের কাছে রাখার কথা ভাবিনি। আমি অনুভব করেছি যে আমার চেয়ে ঐ প্রবীণে এই অর্থের প্রয়োজন হবে, যার পরে আমি এই অর্থ ফেরত দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*