আমার মেয়ে বিয়ের আগে শারীরিক সম্পর্ক করলে আমি কষ্ট পাবো না: মেয়েকে নিয়ে মায়ের স্ট্যাটাস ভাইরাল

Evana Shams এর সেই ভাইরাল স্ট্যাটাস-“আমার মেয়ে (14) বিয়ের আগে ‘সে’ক্স করলে আমি কষ্ট পাবো না। তবে ১৮ হওয়ার আগে করলে কষ্ট পাবো। আঠেরোর পর আমি চাইবো শুধুমাত্র/একমাত্র ভালোবাসার মানুষের সাথে ‘সে’ক্স করুক, এবং এঞ্জয় করুক অ্যাক্টিভ পার্টিসিপেন্ট হিসাবে এবং দুজনে লয়াল থাকুক (যদিও ডিসিশন তার, আমি শুধু অ্যাডভাইস দিতে পারি)।

এভাবে, আলটিমেটলি হাসব্যান্ড হওয়ার মতো কাউকে না পাওয়া পর্যন্ত সে যদি আরও ছেলে ট্রাই করে, কোনো অসুবিধা নাই। ভুল মানুষের সাথে থাকার চেয়ে, কিছু ট্রাই করে পছন্দের মানুষ পাওয়া জরুরি। যে ছেলে ইনট্যা’ক্ট হাইমেন খুঁজে সেই ছোটলোক আমার মেয়ের স্বামী হওয়ার যোগ্য না। আমার চোখে এটাই ন্যায়, এটাই মানবিক, এটাই সৎ চরিত্র, এটাই স্রষ্টার তৈরী শরীরের প্রতি সম্মান…”! স্ট্যাটাসটিতে ১৬ ঘন্টায় ২৩ হাজার রিয়্যাকশন এসেছে। এতে হাহা পড়েছে ১৬৬৩০টি, অ্যাংরি পড়েছে ৩৭০০টি এবং লাভ পড়েছে ১৭৯৬টি। স্ট্যাটাসটি শেয়ার হয়েছে ৩৯০০ বার।

Asif_Mahmud লিখেছেন, “আমার ভাই (১০) বিয়ের আগে হা’রাম প্রে’মের সম্পর্কে জড়ালে আমি কষ্ট পাবো। সে পড়াশোনা করা অবস্থায় থাকতেই (১৮) যদি তাকে বিয়ে করাতে পারি, তবে আমি খুশি হবো। আমি চাইবো সে শুধুমাত্র তার স্ত্রীকে ভালোবাসুক, তার যত্ন করুক, তার সঙ্গ উপভোগ করে জান্নাত পর্যন্ত যাক!

এভাবে আল্টিমেটলি স্ত্রীকে পাওয়ার আগে আমি চাই সে ধৈর্য ধরুক, দৃষ্টি ও ল’জ্জাস্থা’নকে হেফাজত করুক, প্রয়োজনে মুখ ফুটে বলে ফেলুক, কোনো অসুবিধা নেই। স্ত্রী পছন্দ করার ক্ষেত্রে দ্বীনদারিকে প্রাধান্য দিক। ভুলভাল নষ্টা ফেমিনিস্ট পাওয়ার চেয়ে আল্লাহর কাছে দু’আ করে দ্বীনদার স্ত্রী পাওয়া জরুরী। যেই মেয়ে বেদ্বীন, গায়রতহী’ন আর দাইয়ুস পুরুষ খোঁজে সেই ছোটোলোক মেয়ে আমার ভাইয়ের স্ত্রী হওয়ার যোগ্য না। আমার চোখে এটাই ন্যায়, এটাই মানবিক, এটাই সৎ চরিত্র, এটাই স্রষ্টার তৈরি ফিতরাতের প্রতি সম্মান। Nazim Uddin Mishu লিখেছেন, “আপনে একজন আধুনিক মানুষ। গত কয়েকবছর ধরে পর্যবেক্ষণ করে দেখলাম আপনার মত ম’নমা’নসিকতার মানুষ বাড়ছে; অন্ততপক্ষে অনলাইনে তো বাড়ছেই।এটা একটা ভালো দিক। দেশে কু’সংস্কা’রমুক্ত ‘মানবিক’ মানুষ বাড়তে থাকুক। ঠিক কী না, বলেন!”

Rana Abdullah লিখেছেন, “Evana Shams আপনি নিজেও জানেন অস্ট্রেলিয়াতে তারা নিজেরাও এত উদার চিন্তা করেনা ! লন্ডনে ১০ বছর থেকেও দেখেছি এখানে ব্রিটিশ মা রাও চায় তার মেয়ে স্বাবলম্বী হোক শিক্ষা দীক্ষা ও সভ্য মানুষ হয়ে তারা সারাদিন ‘সে’ক্স বিষয় দিয়ে নিজেদের উদারতা প্রকাশ করেনা বরং তারা underage শিশু এর সাথে ‘সে’ক্স করা কে offence হিসাবে গণ্য করে!

অথচ আপনি ১৮ বছর বয়সের আগে আপনার মেয়ে ‘সে’ক্স করলে কষ্ট পাবেন বলছেন !
তার চেয়ে বড় ব্যাপার হচ্ছে আনুশকার মত অবস্থা তার হতে পারে কিম্বা pregnant হতে পারে !
অস্ট্রেলিয়াতে থাকেন বলে এটা নিয়ে ভাবছেন না। বাংলাদেশে এসে আপনার মেয়েকে এই সুযোগ করে দিন। দেখবেন পারবেন না। কারন এখানে সম্মান নিয়ে বাঁচতেই বাঙ্গালী গর্ববোধ করে , ওই মেয়েকে কেউ বিয়ে করতে চাইবে না , শিক্ষা দিতে পারলে জব নিয়ে বাঁচতে পারবে কিন্তু মাথাটা নিচুই থাকবে!

কেন জানেন ? কারন এই দেশে দরিদ্র মানুষ এত উদার হতে পারবে না , তাদের কাছে মেয়ের সম্মান টা অনেক ইঞ্জয় এর জন্য ‘সে’ক্স নয়। জানিনা আপনার মা আপনার প্রতি একি কাজ করেছে কিনা তবে ধরুন আপনিও অনেক ছেলের সাথেই ইঞ্জয় করেন , আপনার ইচ্ছা আপনার লাইফ। এখন এক পার্টিতে গেলেন। অখানে আপনার ২-৩ জন এক্স বয়ফ্রেন্ডের সাথে দেখা হল তারা সবাই আপনার মেয়েকে দেখে বলল – আচ্ছা তুমি ইভানার মেয়ে ? আমরা তো সবাই তোমার আম্মুর boyfriend ছিলাম ইঞ্জয় করেছি! আশাকরি আপনার মেয়েই এরপরে আপনাকে মা বলে পরিচয় দিতে খোদ অস্ট্রেলিয়াতে লজ্জা পাবে।

দুঃখিত আমি শুধু statistic comparison করলাম আমার মনে হয় আপনার উচিত হবে আপনার মেয়ে যেন নাসা তে জব করে Brad pit এর মত জামাই পায় সেই চেষ্টা করা
ধন্যবাদ। Mozammel Hossain Toha লিখেছেন, মহিলা এমনিতেই আল্ট্রা “প্রগ’তিশীল”। তার উপর ফ্রম লন্ডন, লিভস ইন অস্ট্রেলিয়া। আপনাদের সোসাইটির মানুষ না, পুরাই অন্য জগতের মানুষ।

উনি যদি চান উনার মেয়ে বিয়ের পরেও একসাথে ১২ জনের সাথে শা’রী’রিক স’ম্পর্ক রাখুক (ইনফ্যাক্ট উইমেন চ্যাপ্টারের এক নারীবাদী নামের শরীরবাদী এরকম চাইছিলও) তাতেই বা আপনার কী আসে যায়? দেশের ভেতর এমনিতেই যথেষ্ট সমস্যা আছে, কিন্তু এই মহিলার স্ট্যাটাসের বাড়তি কোনো গুরুত্ব ছিল না। তার ফলোয়ার আগে কত ছিল জানি না, কিন্তু গত মাসেও তার স্ট্যাটাসে গড় লাইক ছিল ৬০-৭০। তাকে তার গন্ডির বাইরে কেউ চিনত না।
কিন্তু আজকে আপনারা স্ট্যাটাস ভা’ইরা’ল করার পর ফ্রেন্ডলিস্টের অনেকেই তার ফলোয়ার হিসেবে জুটে গেছে। আমি নিশ্চিত, আগামীকাল থেকে তার স্ট্যাটাসে লাইক সংখ্যা কমপক্ষে কয়েকগুণ বেশি হবে।

এই যে আপনারা ফা’ল’তু একটা স্ট্যাটাস ভাইরাল করলেন, তার আগের এবং পরের বাংলাদেশের সমাজ একই থাকবে। মাঝখান দিয়ে মহিলা ফে’মাস হয়ে গেছে। তার নিজের সার্কেলে আরো বড় নারীবাদী হিসেবে প্রতিষ্ঠা পেয়ে গেছে। তার ফ্যান ফলোয়ার কিছু বৃদ্ধি পেয়েছে। এবং ভবিষ্যতে আরও বি’তর্কি’ত কথাবার্তা বলার ব্যাপারে সে উৎসাহ পেয়েছে।
মহিলার পক্ষ থেকে আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ দিয়ে আমি বলতে চাই: অনেক উপকার হইলো।”

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*