উত্তাপ ছড়াচ্ছেন মাহিয়া মাহি (ছবিসহ)

মাহিয়া মাহি এখন চলচ্চিত্রের অন্যতম শীর্ষ নায়িকা। নিজের প্রথম চলচ্চিত্র ঢালিউডের ব্যবসা সফল ছবির তালিকায় স্থান করে নেয়। এই চলচ্চিত্রের নায়িকা হয়ে ওঠার পেছনের গল্পই ছিল অন্যরকম।

তিনি ভাবতেও পারেন নি যে আজকের অভিনেত্রী মাহি হয়ে উঠবেন। অথচ শুরুটা ছিল শুধু একটা টেলিভিশন বিজ্ঞাপনে কাজ করবেন।

২০১০ সালের ঘটনা। মাহির মাথায় চেপে বসে মডেল হওয়ার বাসনা। মাকে জানান নিজের ইচ্ছার কথা। মা কিছুটা দ্বিধাগ্রস্ত দেখে মাহি বলেন, ‘আম্মু, মাত্র একটা বিজ্ঞাপন করতে চাই, আমার ইচ্ছা টেলিভিশনের পর্দায় নিজেকে দেখার।’

ছবি তোলার জন্য পোজ দিচ্ছেন মাহিয়া মাহি।

মেয়ের ইচ্ছা মেনে নেন মা। কিন্তু মাহির বাবা রাজি হবেন? এ নিয়ে মা-মেয়ে দুজনেই দ্বিধায় ছিলেন। মা-মেয়ের প্রচেষ্টায় মাহি ‘ভালোবাসার রঙ’ চলচ্চিত্রে সুযোগ পাওয়ার পর বাবাও রাজি হয়ে যান।

ইচ্ছা হলেই তো টিভি কমার্শিয়ালে কাজ করার সুযোগ হয় না। কিন্তু মাহির ইচ্ছা বাস্তবে রূপ না পাওয়া পর্যন্ত যেন শান্তি নেই! মাহি দুরন্ত ও মেধাবী। যেটা চান সেটা করেই ছাড়েন।

শুটিংয়ের আগে মাহির হট লুক।

গান শেখার ইচ্ছা হলো ছেলেবেলায়, দ্রুত শিখে ফেললেন। নাচ শেখার ইচ্ছা, তাও দ্রুত শিখে ফেলেন। অভিনয়ও আয়ত্ত করেন হাই স্কুলে পড়ার সময়। এসব কারণে মাহির আত্মবিশ্বাস ছিল, তিনি পারবেন।

নিজের কিছু ছবি নিয়ে বিভিন্ন বিজ্ঞাপনী সংস্থায় জমা দিলেন। তখন জাজ মাল্টিমিডিয়াকেও তাঁরা বিজ্ঞাপনী সংস্থা মনে করতেন। সেখানেও ছবি জমা দিলেন। এর পর অপেক্ষা ডাক আসার!

বেশি দিন অপেক্ষা করতে হয়নি তাঁকে। জাজ মাল্টিমিডিয়া থেকে মাহিকে ডাকা হয়। কিন্তু কে জানত তাঁর প্রত্যাশা সীমানা ছাড়িয়ে যাবে জাজের প্রস্তাবে! তারা মাহিকে নিয়ে বিজ্ঞাপন নয়, একটি বিগ বাজেটের সিনেমা করতে চায়।

তাঁর বিপরীতেও নতুন মুখ। প্রথমবারেই সিনেমায় অভিনয়! বিশ্বাসই হচ্ছিল না মাহির। সেদিন রাতে বাসায় এসে আর ঘুমাতেই পারেননি মাহি। আর এভাবেই বিজ্ঞাপন করতে এসে মাহি হয়ে যান চলচ্চিত্রের নায়িকা।

মাহির রূপে মুগ্ধ হবে যে কেউ। শুটিংয়ের প্রয়োজনে কিংবা বিভিন্ন ফটোশুটে এই অভিনেত্রীর তোলা ছবি উত্তাপ ছড়িয়ে দেয় ভক্তদের মাঝে।

সোফায় বসে আছেন মাহি।

মাহির আরও একটি উত্তাপ ছড়ানো ছবি।

শুটিংয়ের আগে ছবির জন্য পোজ দিচ্ছেন মাহি।

গানের দৃশ্য মাহি।

আইটেম সংয়ে মাহিয়া মাহি।

মাহির উত্তাপ ছড়ানো আরও একটি গানের দৃশ্য।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*