গান গাওয়া যদি হারাম হয় তাহলে ওয়াজ করাও হারাম; পুলিশ সদস্য

সোস্যাল মিডিয়ায় এক পুলিশ সদস্যের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। ভাইরাল হওয়া ভিডিওটিতে দেখা যায় ঐ পুলিশ সদস্য বলছে, আপনি আমাকে কুরআন হাদিস খুলে দেখান কোথায় গান গাওয়া হারাম, কোথাও দেখাতে পারবেন না। যদি গান গাওয়া হারাম হয় আমি বলব ওয়াজ করাও হারাম।

ওয়াজ করা হারাম প্রশঙ্গে তিনি যুক্তি দেন এবং সেখানে তিনি বলেন, যে হুজুর সারারাত ওয়াজ করল মানুষ সারারাত তার ওয়াজ শুনল কিন্তু সকালে উঠে ঐ মানুষ গুলো দুধে পানি মিশালো একজনের মাথায় গিয়ে আঘাত করল তাইলে দেখা গেল যে হুজুর সারারাত তার উপর ওয়াজ করল সেটা কোন কাজে আসল না এজন্য সেটা হারাম হলো।

গান গাওয়া হালাল প্রশঙ্গে তার যুক্তি দিতে গিয়ে বলেন, আর যখন মিরাজ দেওয়ান গান করল, ‘এই পথ দিয়ে দয়াল আসবে রে, আমি থাকি পথের দিকে চাইয়া, দয়াল তুমি ছাড়া আমার এই দুনিয়ায় কেউ নাই’ এই কথা বলতেছে আর চোখের পানি ফেলতেছে, সে লোক চোখের পানি ফেলতে ফেলতে বাড়ি গেছে, বাড়ি গিয়ে যে তার শত্রুর গায়ে আঘাত করবে সেই সাহস সে পাচ্ছে না কারন ঐ যে দয়াল তাকে দেখতেছে, এই যে গান টা যে গাইলো এটা তার জন্য হালার হলো।

পাঠকদের জন্য ভিডিওটি দেওয়া হলো। ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

আরো পড়ুন>> সোমালিয়ায় অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিস্থিতি সংকটময় হওয়া সত্ত্বেও সেদেশের দরিদ্র পরিবারের মধ্যে কুরআনিক কার্যক্রম অব্যাহত আছে।

সোমালিয়া বিশ্বের মধ্যে অন্যতম একটি দরিদ্র দেশে। সেদেশের নাগরিকগণ কষ্ট ও দারিদ্রসীমার মধ্যে জীবন যাপন করলেও তাদের সন্তানদের কুরআনের আলেতে আলোকিত করার প্রচেষ্টা করছে।

অপ্রতুল ব্যবস্থাপনাতেই চলছে কুরআন শিক্ষা। প্রাচীন কালে কাঠ ও পাথরের উপর লেখা কুরআন মুখস্থ করা, অন্যতম কার্যকর পদ্ধতি হিসাবে বিবেচিত হত।

আফ্রিকার অধিকাংশ দেশে কুরআন মুখস্থ করার ব্যবহারিক উপায় হিসেবে এখনও এই পদ্ধতি প্রচলিত আছে।

পাঁচ বছর বয়স থেকে ১৮ বছরের যুবকরা এই পদ্ধতিতে কুরআন মুখস্থ করছে। শিশুরা কালি ব্যবহার করে পাথর বা ব্ল্যাকবোর্ডে আয়াত লিখতে থাকে এবং অবিচ্ছিন্নভাবে লিখে আয়াতগুলো মুখস্থ করে।

বর্তমানে, সোমালিয়ায় শক্তিশালী কেন্দ্রীয় সরকারের অভাবে সুরক্ষা ও পরিষেবা অনেক দুর্বল হয়ে গিয়েছে।

সোমালিয়ার মোট জনসংখ্যা প্রায় ১ কোটি ১৬ লাখ এবং সেদেশের মোট জনসংখ্যার ৯৯% এর চেয়ে বেশি মুসলিম। সূত্র: ইকনা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*