গোলাপগঞ্জে প্রতিদিন পুড়ানো হয় ২০ লক্ষ টাকার সম্পদ!

সিলেটের গোলাপগঞ্জে গ্যাস বোটলিং কারখানা এলপিজি প্ল্যান্ট এবং এলপি গ্যাস ও পেট্রোল উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান আরপিজিসিএল এর কেটিএল প্ল্যান্ট চালু এবং কৈলাশটিলা এমএসটিই গ্যাস ফিল্ডে ‘তরল স্বর্ণ’ এনজিএল পুড়িয়ে ধ্বংস করা বন্ধে সর্বস্তরের গোলাপগঞ্জবাসীর পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়েছে।সোমবার (১১ জানুয়ারি) দুপুর ১২টায় গোলাপগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর নিকট স্মারকলিপি প্রদান করা হয়।

গোলাপগঞ্জের জনপ্রতিনিধি, ব্যবসায়ী, সুশীল সমজের ব্যক্তিবর্গসহ সর্বস্তরের জনতার পক্ষে উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও গোলাপগঞ্জ খনিজ ও প্রাকৃতিক সম্পদ রক্ষা কমিটির আহবায়ক এডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরী স্মারকলিপি প্রদান করেন। এরপূর্বে উপজেলা অডিটোরিয়ামে একসভা অনুষ্ঠিত হয়।সভায় বক্তারা গুরুত্বপূর্ণ রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানের উৎপাদন বন্ধ থাকা এবং মূল্যবান খনিজ সম্পদ পুড়িয়ে ধ্বংস করে রাষ্ট্রের ব্যাপক ক্ষতির বিষয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে বলেন, গ্যাস ফিল্ডে প্রতিদিন বাজার মূল্যে প্রায় ২০ লক্ষ টাকার পেট্রোলিয়ামের খনিজ উপাদান এনজিএল পুড়িয়ে ধ্বংস করা হচ্ছে।

২টি প্ল্যান্ট বন্ধ, এনজিএল পুড়িয়ে ধ্বংস, পরিবেশের ক্ষতি এবং দুটি প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় গোলাপগঞ্জ চর্তমুখী ক্ষতির স্বীকার হচ্ছে। দুটি সম্পূর্ণ চালু প্রতিষ্ঠান বন্ধ এবং প্রতিদিন রাষ্ট্রীয় সম্পদ পুড়িয়ে ধ্বংস ও পরিবেশের ক্ষতি সাধন গোলাপগঞ্জবাসী মেনে নিবে না।তারা বলেন, এসব প্রতিষ্ঠানের সাথে গোলাপগঞ্জের আর্থ-সামাজিক অবস্থা ও রাষ্ট্রের স্বার্থ জড়িত। এটা সরকারের উন্নয়ন কর্মকান্ডকে বাঁধাগ্রস্থ করার কোন চক্রান্ত হতে পারে বলে সন্দেহ প্রকাশ করেন তারা। বক্তারা বলেন, বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিরোধী দলে থাকা অবস্থায় ১৯৯১ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি গোলাপগঞ্জে ফ্রাকশনেশন, এলপিজি প্ল্যান্ট স্থাপনের দাবি জানিয়েছিলেন। ১৯৯৬ সালে স্থাপিত হয় এলপিজি প্ল্যান্ট। বক্তারা প্রধানমন্ত্রীর নিকট তাঁর প্রতিষ্ঠিত প্রতিষ্ঠান এবং জাতীয় সম্পদ রক্ষায় দ্রুত ব্যবস্থা নেয়ার অনুরোধ জানান।উপজেলা সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন গোলাপগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এডভোকেট ইকবাল আহমদ চৌধুরী। সভাপতির বক্তব্যে তিনি জাতীয় সম্পদ রক্ষায় প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

গোলাপগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ও গোলাপগঞ্জ খনিজ ও প্রাকৃতিক সম্পদ রক্ষা কমিটির সদস্যসচিব ইউনুছ চৌধুরীর পরিচালনায় সভায় উপস্থিত ছিলেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মনসুর আহমদ, বাদেপাশা ইউপি চেয়ারম্যান ও ইউপি আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাক আহমদ, শরিফগঞ্জ ইউপি চেয়ারম্যান এমএ মুমিত হীরা, আমুড়া ইউপি চেয়ারম্যান রুহেল আহমদ, উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা জিল্লুর রহমান, রাজনীতিবিদ ডা. আব্দুল গফুর, নব্বইয়ের সাইপাম সিমিটার আন্দোলনের স্টিয়ারিং কমিটির সদস্য মহিউস সুন্নাহ চৌধুরী নার্জিস, নিজাম উদ্দিন, ছালিক আহমদ চৌধুরী, জেলা জাতীয় পর্টির সাবেক সহসভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান মজির উদ্দিন চাকলাদার, নব্বইয়ের

সাইপাম সিমিটার আন্দোলনের অন্যতম নেতা ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক রুহেল, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সাংষ্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক ও রনকেলী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি মিজানুর রহমান চৌধুরী রিংকু, সাবেক উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান নোমান উদ্দিন মুরাদ, উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক দেলওয়ার হোসেন,ঢাকাদক্ষিণ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ আব্দুল মতলিব, রাজনীতিবিদ আব্দুর নূর মসছলাই, যুক্তরাজ্য স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি সায়াদ আহমদ সাদ, উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা শাহাব উদ্দিন আহমদ, জেলা গনদাবী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল করিম পাখি, উপজেলা

গনদাবী পরিষদের সভাপতি ডা. হাবিবুর রহমান, পৌর জাতীয় পার্র্টির আহবায়ক জহির উদ্দিন, সদস্য সচিব মনিরুজ্জামান মনির, যুগ্ম আহবায়ক জমির উদ্দিন, উপজেলা আওয়ামীলীগ নেতা আবুল লেইছ, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি খায়রুল হক, উপজেলা বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ ও স্মৃতিপাঠাগারের সভাপতি আবু সুফিয়ান আজম, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক বিভাগীয় উপ সম্পাদক, লেখক ও কলামিষ্ট হোসেন আহমদ, রাজনীতিবিদ নুরুল আমিন লিলন, লক্ষনান্দ ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক সায়াদ আহমদ, গোলাপগঞ্জ প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ জালাল আহমদ চৌধুরী, সদস্য ফারহান মাসউদ আফছর, রাজনীতিবিদ জামাল আহমদ, পৌর যুবলীগের আহবায়ক আলতাফ হোসেন, পৌর জাতীয় পার্টির আব্দুর রউফ, আওয়ামীলীগ নেতা তমিজ উদ্দিন, জয়নাল আহমদ মাস্টার, জাতীয় পার্টির শাহাব উদ্দিন নাজু, রাজনীতিবিদ আমির আহমদ খুকু, সমাজসেবক এনাম আহমদ, ইউপি সদস্য রুহেল আহমদ, তারেক

আহমদ, আব্দুল মান্নান মছব্বির আলী, সালেহ আহমদ, নুরুল হক, পরিবেশবাদী আব্দুল লতিফ, সাইফুল ইসলাম, হাজী ফারুক আহমদ মেম্বার, ব্যবসায়ী আব্দুল জলিল সেলিম, রাজু আহমদ চৌধুরী, ফয়সল আহমদ খান, এমাদউদ্দিন খান, সাংবাদিক হোসেন আহমদ, মেহদী হাসান ও কামাল আহমদ প্রমুখ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*