তিন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের জায়গা দখল করে নেতার খামার

ঝালকাঠির কাঁঠালিয়া উপজে’লার চিংড়াখালীর তিনটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাঠ, পুকুর ও শ্রেণিকক্ষ দখল করে নিয়েছে স্থানীয় এক প্রভাবশালী বিএনপি নেতা। একই কমপ্লেক্সের মধ্যে রয়েছে চিংড়াখালি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, চিংড়াখালি সিনিয়র মা’দরাসা ও নূরানী কিন্ডারগার্টেন।

অ’ভিযোগ উঠেছে, কাঠালিয়া উপজে’লা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি আব্দুল জলিল মিয়াজি এসব জায়গা দখল করে গাছপালা লাগিয়েছেন এবং হাঁস, মুরগী ও গবাদি পশুর খামা’র গড়ে তুলেছেন। কেউ এসবের প্রতিবাদ করলে তাকে মা’মলা দিয়ে হয়রানি করা হচ্ছে। এতে ওই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগু’লোর একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রম ব্যা’হত হচ্ছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ১৯৪৩ সালে চিংড়াখালী প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং সংল’গ্ন সিনিয়র মা’দরাসা ও মিঞাজি মাজার প্রতিষ্ঠা করা হয়। পরবর্তীতে সেখানে প্রতিষ্ঠিত হয় নূরানী কিন্ডারগার্টেন, এতিমখানা, হাফিজিয়া মা’দরাসা ও লিল্লাহ বোর্ডিং।

বর্তমানে এসব প্রতিষ্ঠানে সাড়ে সাতশ শিক্ষার্থী রয়েছে। বিএনপি নেতা মো. আবদুল জলিল মিঞাজী বছর খানেক আগে বিদ্যালয়ের শ’হীদ মিনার সংল’গ্ন খেলার মাঠ ও জমি দখল করে গরু-ছাগল ও হাঁস-মুরগির খামা’র করেছেন।সস্প্রতি তিনি নূরানী কিন্ডারগার্টেনের দুটি শ্রেণিকক্ষ টিনের বেড়া দিয়ে এবং অফিস কক্ষ তালা দিয়ে নিজ দখলে নিয়েছেন। এছাড়া সিনিয়র মা’দরাসা সংল’গ্ন ঈদগাহ মাঠ ও পুকুর জাল দিয়ে আট’কে দিয়ে গাছ লাগিয়েছেন।তবে জলিল মিঞাজী ঢাকায় অবস্থান করায় এ ব্যাপারে তার কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

কাঁঠালিয়া চিংড়াখালী সিনিয়র মা’দরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা মো. রুহুল আমীন হাওলাদার এ সমস্যার সুষ্ঠু সমাধানের জন্য প্রশাসনের হস্ত’ক্ষেপ কামনা করছেন।এ ব্যাপারে কাঠালিয়া উপজে’লা নির্বাহী কর্মক’র্তা সুফল চন্দ্র গোলদার জানান, বি’ষয়টি তিনি শুনেছেন এবং ইতোমধ্যে ভূমি কর্মক’র্তাকে ত’দন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। লিখিত অ’ভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*