প্রধানমন্ত্রীর নাম-ছবি দোকানের সাইনবোর্ডে, এলাকায় তুলকালাম!

সিলেট নগরীর লালদিঘীর পাড়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নাম ও ছবি দিয়ে দোকানের সাইনবোর্ড টানানোকে কেন্দ্র করে তুলকালাম কাণ্ড ঘ’টেছে। এ নিয়ে লালদিঘীর পাড় এলাকায় উ’ত্তেজনার সৃ’ষ্টি হলে পু’লিশ ঘ’টনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে।

মঙ্গলবার হ’ঠাৎ সাইফুর হোসেন সাজ্জাদ বেপারীর দোকানের উপরে ‘শেখ হাসিনা স্টোর’ নামে সাইনবোর্ড টানানো দেখা যায়। এ সাইনবোর্ডে বড় করে প্রধানমন্ত্রীর ছবিও সাঁ’টানো আছে।

এমন সাইনবোর্ড নিয়ে সকাল থেকেই লালদিঘীর পাড় এলাকায় আ’লোচনা-সমা’লোচনা চলতে থাকে। সময় গড়ালে তা উ’ত্তেজনায় রূপ নেয়। প্রতিবা’দী হয়ে উঠেনে স্থানীয় ব্যবসায়ীরা।

ব্যবসায়ীদের অ’ভিযোগ, সাইফুর হোসেন সাজ্জাদ বেপারীর কোনো ট্রেড লাইসেন্সই নেই। সে তার অ’বৈধ ব্যবসা চালানোর ক্ষেত্রে প্রশা’সনের হাত থেকে বাঁ’চতে এমন চতুরতার পথ বেছে নিয়েছে। তাছাড়া সে আওয়ামী লীগের কোনো নেতাকর্মী, এমনকি সমর্থকও নয়।

বিষয়টি নিয়ে উ’ত্তেজনার খবর পেয়ে বিকাল ৩টার দিকে ঘ’টনাস্থলে পু’লিশ গিয়ে পরিস্থিতি নি’য়ন্ত্রণে আনে। পরে বন্দরবাজার ফাঁড়ির একদল পু’লিশ সাইনবোর্ডটি নামিয়ে ফাঁড়িতে নিয়ে আসে।

তবে এ সময় সাইফুর হোসেন সাজ্জাদ বেপারীকে খুঁ’জে পাওয়া যায়নি। তার মোবাইল ফোনে কল দিলেও কেউ রিসিভ করেননি। জানা গেছে, নগরীর লালদিঘীর পাড় নতুন মার্কেটের বি ব্লকে চা-পাতার দোকান দিয়ে ব্যবসা করেন সাইফুর হোসেন সাজ্জাদ বেপারী নামের একজন।

তিনি ওরিয়ন টি কোম্পানি লিমিটেড ও মডার্ন ফুড লিমিটেড-এর ডিলার। এ বিষয়ে সিলেট মহানগর বন্দরবাজার পু’লিশ ফাঁড়ির ইনচা’র্জ মো. মুহিউদ্দিন বলেন, স্থানীয় ব্যবসায়ী ও আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দের দেয়া খবরের ভিত্তিতে আমাদের ফাঁড়ির একদল পু’লিশ ঘ’টনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করে এবং সাইনবোর্ডটি খুলে নিয়ে আসে।

তবে যিনি সাইনবোর্ড লাগিয়েছেন তাকে আমরা খুঁ’জে বের করার চে’ষ্টা করছি। তাকে পেলে জি’জ্ঞাসাবা’দ ও ত’দন্ত সাপেক্ষে আ’ইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। এ ঘ’টনায় এলাকায় তোলপাড় চলছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*