প্রশংসায় ভাসছেন প্রাথমিকের এক সহকারি শিক্ষক

জয়পুরহাট ক্ষেতলাল উপজেলার হিন্দা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মুহাম্মদ মাহবুবর রহমান। এবছর ওই উপজেলার ৫টি বিদ্যালয়ে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের উন্নয়ন বাবদ দেড় লাখ টাকা করে বরাদ্দ এসেছিলো। এসব কাজ বিদ‌্যালয় কর্তৃপক্ষ উপ‌জেলা প্রকৌশল অ‌ফিস থে‌কে প্রাক্কলন নি‌য়ে সে অনুযায়ী কাজ ক‌রেন।এক্ষেত্রে অনন্য নজির স্থাপন

করেছেন শিক্ষক মাহবুবর রাহমান। নির্দিষ্ট কাজ শেষে তিনি বিদ্যালয়ের কোষাগারে ফেরত দিয়েছেন ৭৪ হাজার তিনশো ৭৫ টাকা! বিষয়টি নিয়ে জানতে চাইলে শিক্ষক মাহবুবর রহমান জানান, কাজের জন্য গাড়ি ভাড়া বাঁচিয়ে পায়ে হেঁটে গিয়েছি। মিস্ত্রি খরচ বাঁচাতে বিদ্যালয়ের প্রহরীকে কাজে লাগিয়েছি। নিজের পকেটের টাকা দিয়ে দুপুরের খাবার খেয়েছি। তবুও বিদ্যালয়ের

টাকায় হাত দিইনি।তিনি আরো বলেন, আমার এক বন্ধু বলেছিলো তুই যে কষ্ট করেছিস বেঁচে যাওয়া অর্থের ভাগীদার তুই। এই অর্থ নিজের পকেটে রেখে দে। এর উত্তরে আমি বলেছিলাম, আমি শিক্ষক ঠিকাদার নয়। বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক দেল আফরোজ আরা বানু বলেন, ‘নিড বেজড প্লেয়িং এক্সেসরিস’ সরকারি প্রকল্পের অর্থ সরকারি কর ও অন্যান্য খরচ বাদে আমরা

হাতে পেয়েছিলাম ১ লাখ ২৪ হাজার টাকা। বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মাহবুবর কাজটি মাত্র ৪৯ হাজার টাকায় সম্পন্ন করেছেন। অবশিষ্ট অর্থ দিয়ে কী করা হবে জানতে চাইলে শিক্ষক মাহবুবর রহমান বলেন, বিদ্যালয়ের দুটি কক্ষ টাইলস করার পরিকল্পনা রয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*