বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে ভয়াবহ সুড়ঙ্গ ; কিভাবে এটি করল ভারতীয়রা?

ভারতের আসাম রাজ্যের করিমগঞ্জ জেলার বাংলাদেশ সীমান্তসংলগ্ন এলাকায় ২০০ মিটার লম্বা এক সুড়ঙ্গপথের সন্ধান মিলেছে। সুড়ঙ্গপথটি এক দিকে ভারতের আসাম রাজ্য আর অন্যদিকে বাংলাদেশকে যুক্ত করেছে। সুড়ঙ্গের ভারতের দিকের মুখ বন্ধ করতে বিএসএফকে বলা হয়েছে স্থানীয় পুলিশের পক্ষ থেকে।

ভারতের স্থানীয় গণমাধ্যমের খবরে বলা হয়, গত রবিবার নিলামবাজার থানার শিলুয়া গ্রামের বাসিন্দা দিলোয়ার হোসেনকে তুলে নিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। ফোন করে পাঁচ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে। কাউকে না জানিয়ে টাকা জমা দিতে হবে

পার্শ্ববর্তী নয়াগ্রামের এলিম উদ্দিনের কাছে। আর তখনই সূত্র পেয়ে যায় পুলিশ। সঙ্গে সঙ্গে এলিমকে গ্রেপ্তার করা হয়। তাকে জেরা করলে সুড়ঙ্গের বিষয়টি প্রকাশ হয়ে যেতে পারে এই আশঙ্কায় দুষ্কৃতীরা দিলোয়ারকে ছেড়ে দেয়। দিলোয়ার এসে পুলিশকে সুড়ঙ্গের কথা জানিয়ে দেন।

দিলোয়ার জানান, বাংলাদেশ প্রান্তেও ওই একই ব্যবস্থা করা রয়েছে। এখান দিয়েই দুষ্কৃতিকারীরা নিয়মিত যাতায়াত করে। চলে পাচারও। দিলোয়ারের দেওয়া সূত্র ধরে দল বেঁধে পুলিশ কর্মকর্তারা বালিয়ায় যান। নেতৃত্বে ছিলেন স্থানীয় পুলিশ সুপার ময়ঙ্ককুমার ঝা।

পুলিশ সুপার জানান, সুড়ঙ্গের ভারতের দিকের মুখ বন্ধ করতে বিএসএফকে বলা হয়েছে। কমান্ডান্টের সঙ্গেও যোগাযোগ করা হয়েছে। আন্তর্জাতিক অপহরণকারী চক্রের সবাইকে শিগগিরই গ্রেপ্তার করা হবে। এরই মধ্যে বেশ কয়েক জনকে আটক করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। সূত্র : হিন্দুস্থান টাইমস, আনন্দবাজার

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*