মালয়েশিয়ায় দুই দশক ধরে নকল ওষুধের কারখানা বাংলাদেশির, টার্গেট ছিল প্রবাসী রোগী

মালয়েশিয়ায় প্রায় দুই দশক ধরে স্বদেশিদের কাছে ন’ক’ল ওষুধ বিক্রি করছিলেন আজম নামের বাংলাদেশি এক নাগরিক। সম্প্রতি তিনি গ্রে’ফতা’র হয়েছেন। তার বাড়ি শরিয়তপুরের জাজিরায়।

আজমের টা’র্গে’ট ছিলেন প্রবাসী রো’গীরা। বাংলাদেশ এবং ভারতের নাগরিকদের কাছেই এগুলো বেশি বিক্রি করতেন। চলতি সপ্তাহে বেশ কয়েক জায়গায় অ’ভিযা’ন চা’লিয়ে আজমের স’ঙ্গে জ’ড়িত স’ন্দে’হে আরও পাঁচ প্রবাসীকে গ্রে’ফতা’র করেছে মালয়েশিয়ান পুলিশ।

মালয়েশিয়ায় বসবাসরত বাংলাদেশিরা জানিয়েছেন, বাংলাদেশের নাপা ব্র্যা’ন্ডনেমে’র মতো অনেক ওষুধের পাশাপাশি ফেয়ার অ্যান্ড লাভলিও ন’কল করে ফেলেন আজম। মালয়েশিয়ার কিছু জনপ্রিয় ওষুধও নিজের কারখানায় তৈরি করছিলেন তিনি।

না প্রকাশে অ’নি’চ্ছু’ক এক প্রবাসী বলেন, ‘আমরা কয়েক জন অনেক আগে থেকে তাকে চিনতাম। এখানে প্রভাবশালী তিনি। তাই কিছু বলতে পারতাম না। যেসব ওষুধ ‍তিনি বিক্রি করছিলেন, সেগুলো খেয়ে মানুষ ‘মা’রা’ও যেতে পারে। সব প্রবাসীর বিষয়টি জানা দরকার।’

আজম যে কোম্পানির (জাজিরা এন্টারপ্রাইজ) অ’ধীনে ভু’য়া ওষু’ধ বি’ক্রি করছিলেন, তার একটি নথি ঘেঁটে মালিক হিসেবে একজন নারীর নাম দেখা গেছে। এই না’রী মূ’লত আজমের মালয়েশিয়ান স্ত্রী। আগে কোম্পানিটি নিজের নামে থাকলেও পরে মালিকানা স্ত্রী হালিমাহ বিনতি ইসমাইলের নামে হস্তান্তর করেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*