শ্বশুরবাড়িতে ধর্ষণের শিকার গৃহবধূ, অবশেষে গ্রেফতার স্বামী ও ভাসুর

শ্বশুরবাড়িতে আসার পর থেকে অত্যাচার শুরু। এরপর শুরু হয় ধর্ষণ। নিজের ভাসুর দিনের পর দিন ধর্ষণ করেছেন, থানায় এমন অভিযোগ করেন কলকাতার নাদিয়ালের এক গৃহবধূ। গৃহবধূর এমন অভিযোগের ভিত্তিতে স্বামী ও ভাসুরকে গ্রেফতার করে পুলিশ। পুলিশ জানায়, ২০০৮ সালে নাদিয়ালের এক যুবকের সঙ্গে ওই নারীর বিয়ে হয়।

ভুক্তভোগীর অভিযোগ অনুযায়ী, বিয়ের পর থেকে তার ওপর অত্যাচার চলতে থাকে। কিছুদিন পর থেকে অত্যাচার অন্য মাত্রা নেয়। ওই গৃহবধূর ভাসুরই তাকে একাধিকবার ধর্ষণ করেন। এমনকি ধর্ষণের কথা কাউকে বলে দিলে তাকে হত্যা করা হবে বলে ওই গৃহবধূকে হুমকি দেয়া হতো। এ অবস্থায় দুই মেয়েকে নিয়ে অসহায় বোধ করতে থাকেন তিনি।

অবশেষে সাহস করে নিজের স্বামীকে বিষয়টি জানান তিনি। কিন্তু স্বামীও তার পাশে দাঁড়ায়নি। ওই গৃহবধূ লজ্জা ও ভয়ে পরিবারের অন্য কাউকে কিছু বলতে পারেননি। কিন্তু অত্যাচারের মাত্রা সীমা ছাড়ানোর পর বাধ্য হয়ে পুলিশের কাছে গিয়ে অভিযোগ জানান তিনি।

শ্বশুরবাড়ি থেকে চলে যেতেও বাধ্য হন ওই গৃহবধূ। তার অভিযোগের ভিত্তিতেই স্বামী ও ভাসুরকে নাদিয়াল থানার পুলিশ গ্রেফতার করে। ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। পুলিশ ওই গৃহবধূকে সুরক্ষার আশ্বাস দিয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*