হারিয়ে যাওয়া মেয়েকে ফেসবুকে খুঁজে পেলেন বাবা!

প্রায় ১৮ বছর আগে ঢাকা থেকে নি’খোঁজ হন তানিয়া আক্তার। পরিবারের সদস্যরা তাকে কোথাও খুঁজে পাচ্ছিলেন না। মেয়েকে হা’রিয়ে যন্ত্রণা কুড়ে খাচ্ছিল বাবা সুন্দর আলী সিকদারকে।

অবশেষে সন্ধান মিলেছে তানিয়ার। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের কল্যাণে রোববার পরিবার ফিরে পেয়েছে গোপালগঞ্জের কোটালিপাড়া উপজেলার এই তরুণী। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার শান্তিনগর এলাকায় বসবাস করা মেয়ে তানিয়াকে নিতে আসেন বাবা সুন্দর আলী সিকদারসহ পরিবারের সদস্যরা।

সুন্দর আলী সিকদার জানান, প্রায় ১৮ বছর আগে তানিয়াকে নিয়ে ঢাকায় বোনের বাড়ি বেড়াতে যান সুন্দর আলী। তখন তানিয়ার বয়স ছিল ৬ বছর। তাকে ঢাকায় রেখে গ্রামের বাড়ি চলে যান সুন্দর আলী। পরে জানতে পারেন, বাবার পিছু পিছু তানিয়াও সেদিন বাসা থেকে বেরিয়ে যায়। এরপর অনেক খোঁজাখুঁজি করেও তানিয়ার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।এ নিয়ে পত্রিকায় নি’খোঁজ বিজ্ঞপ্তিও ছাপানো হয়। কিছুদিন আগে ফেসবুকে তানিয়ার ছবিসহ হা’রিয়ে যাওয়ার সংবাদ দেখে তানিয়ার খোঁজ পায় পরিবার।

সুন্দর আলী সিকদার বলেন, ‘ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা উপজেলার রাইতলা গ্রামের রিপন মিয়া আমার মেয়েকে লালন-পালন করেছেন এবং ভালো পাত্র দেখে বিয়ে দিয়েছেন। বাবা হিসেবে আমি তার প্রতি কৃতজ্ঞ।’তানিয়া আক্তার বলেন, ‘বাবাকে হা’রিয়ে ফেলার পর রিপন বাবা আমাকে লালন-পালন করেছেন। আমি পরিবারকে খুঁজে পেতে অনেক চেষ্টা করেও পাইনি। এখন পরিবারকে ফিরে পেয়ে আমি খুবই আনন্দিত।’

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*