২ মে’য়েকে পুকুরে ডু’বি’য়ে মে’রে’ই ফে’ললেন মা!

রাতের খাবার নিয়ে হয় চ’রম অ’শা’ন্তি। আর তা’তেই মান’সিক’ভাবে ভে’ঙে পড়ে ২ স’ন্তা’ন’কে পুকুরে ডু’বি’য়ে হ’ত্যা করেলেন মা। ম’র্মা’ন্তি’ক এ ঘটনা ঘটেছে প’শ্চি’ম’ব’ঙ্গের মা’ল’দ’হের চাঁ’চো’ল ২ নং ব্ল’কে’র অ’নু’প ন’গ’র এ’লা’কায়। এর’ই ম’ধ্যে অ’ভি’যু’ক্ত ক’ন্যা স’ন্তা’ন দুটির মা এবং দাদিকে গ্রে’ফ’তা’র করেছে প’’শ্চি’ম’ব’ঙ্গে’র চাঁ’চ’ল থা’না’র পু’লি’শ।

স্থা’নী’য়’রা জানান, শু’ধু রা’তে খা’বা’র নি’য়ে অ’শা’ন্তি নয়, পর পর দুই ক’ন্যা স’ন্তা’ন জ’ন্মা’নো’র জ’ন্য মাঝে ম’ধ্যেই স্বা’মী-স্ত্রী’র ঝগড়া হতো।এদিকে মৃ’ত দুই মেয়ের বা’বা চ’ঞ্চ’ল ম’ণ্ড’ল সাং’বা’দি’কদের বলেন, শনিবার (৯ জানুয়ারি) স’ন্ধ্যা’য় যখন বাড়ি ফিরি, তখন স্ত্রীর স’ঙ্গে আমার রাতের খাবার নিয়ে তু’মু’ল ঝগড়া হয়। ঝ’গ’ড়া’র পর যে যার মতো ঘু’মিয়ে পড়ি। বড় মেয়ে আমার পা’শেই ঘুমি’য়েছিল। সকালে উ’ঠেই চ’ঞ্চ’ল খবর পান মেয়ে পানি’তে ডু’বে গেছে।তিনি আরও বলেন, সকালে উঠে জানতে পারি, মেয়ে পুকুরের পানিতে ডু’বে গেছে। তড়িঘড়ি বাড়ি থেকে ছুটে গিয়ে দেখি গ্রাম থেকে দূরে, মাঠের পাড়ে একটি পু’কুরে আমার ২ মে’য়ের দে’হ ভা’সছে।

চ’ঞ্চ’লে’র মৃত দুই মে’য়ের নাম মা’ধু’রী মণ্ডল (১০) ও জ’য়’শ্রী মণ্ডল (৮)। অ’ভি’যু’ক্ত মা’য়ে’র নাম মা’ম্পি মণ্ডল। রোববার (১০ জানুয়ারি) সকালে ঘটনার খবর পে’য়ে দ্রু’ত ঘ’ট’না’স্থ’লে উ’প’স্থি’ত হয় পু’লি’শ। এর ম’ধ্যে মে’য়ে’দের দে’হ পা’নি’তে ভা’সতে দেখে মাকে আ’ট’কে রাখেন গ্রা’মবা’সীরা। অ’ভি’যু’ক্ত মা’ম্পি’কে ’গ্রামবা’সীর কাছ থেকে ছাড়িয়ে গ্রে’ফ’তা’র করে পুলিশ।

চঞ্চল জানান, তার স্ত্রী দী’র্ঘ’দি’ন ধরে মান’সিক রো’গে ভু’গ’ছেছি’লেন। সেই কারণেই হয়তো সে এ কাণ্ড ঘটিয়েছে। যদিও এলাকার মানুষ সেই কথা মানতে চাননি। তাদের দাবি, বিয়ের পর থেকে এ দ’ম্প’তির মধ্যে অ’শা’ন্তি লেগেই থাকত। পর’পর ২ ক’ন্যা স’ন্তা’ন জ’ন্মা’নো’র পর সেই অ’শা’ন্তি আরও বাড়ে। সেই কারণেই ২ স’ন্তা’ন’কে প্রা’ণ দিতে হলো বলে মনে করছেন তারা।

এদিকে প’রি’স্থি’তি নি’য়’ন্ত্র’ণের বাইরে যাতে চলে না যায় সে জন্য এলাকায় এক প্লা’টু’ন পু’লি’শ মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়া মৃ’ত দুই মেয়ের ম’র’দে’হ মা’ল’দ’হ মে’ডি’কেল কলেজে ম’য়’’না’ত’দ’ন্তে’র জ’ন্য পা’ঠা’নো হয়ে’ছে জানি’য়েছে চাঁ’চ’ল থা’না পু’লি’শ।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*