অবশেষে সুখবর দিলেন শাকিব-বুবলী

সব গু'ঞ্জন উড়িয়ে দিয়ে অবশেষে ঢাকাই ছবির আলোচিত জুটি শাকিব খান ও বুবলী একই টেবিলে পাশাপাশি বসে নতুন ছবিতে চু্ক্তিব'দ্ধ হলেন। এর মাধ্যমে দীর্ঘ বিরতির পর ফের শাকিব-বুবলীকে পর্দায় দেখতে পাবেন দর্শক। ছবিটির নাম ‘লিডার (আমিই বাংলাদেশ)’। ছবিটি প্রযোজনা করছে বে'ঙ্গল মাল্টিমিডিয়া লিমিটেড। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় ঢাকার তেজগাঁওয়ে আরটিভি স্টুডিওতে ‘লিডার (আমিই বাংলাদেশ)’ ছবির চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠিত হয়।

ছবিটি পরিচালনা করবেন নাট্য নির্মাতা তপু খান। সিনেমায় প্রথম তিনি। প্রথম ছবিতেই নায়ক হিসেবে পেয়েছেন দেশের শীর্ষ নায়ককে। এখন দেশে যে ওয়েব সিরিজের চল। এই নির্মাতাই ২০১৬ সালে বাংলাদেশের প্রথম ওয়েব সিরিজ নির্মাণ করেন। পাশাপাশি বিজ্ঞাপনচিত্র নাটক সব মিলিয়ে তিন শতাধিক কনটেন্ট বানিয়েছেন তিনি। সিনেমায় একেবারেই নতুন তিনি। এই নতুন নির্মাতাকেই কেন শাকিব খান তার পরবর্তী মিশনের জন্য বেছে নিলেন? নিজের বক্তব্যে সেটা স্পষ্ট করেই জানালেন শাকিব খান।

বললেন, ‌’আমি সেই নতুনের স'ঙ্গে কাজ করতে চাই, সবসময় হাঁটতে চাই, যে আমাকে নতুন পথচলা শেখায়। নতুন গল্প দেয়। সেই নতুন না, যে শুধু বয়সে নতুন। নতুন হলেও তপু খান একজন মেধাবী নির্মাতা। তার মধ্যে স্বপ্ন রয়েছে। ভালো কিছু করার স্বপ্ন। আমা'র বিশ্বা'স— লিডার মুক্তির পর দর্শক বুঝবে যে তপু কতটা মেধাবী নির্মাতা।’ শাকিব খান মনে করেন, নতুন এই ছবি গতানুগতিক ধা'রার বাইরে এসে অন্য রকম একটি গল্পের ছবি হবে, যে ছবিটি দেশের প্রত্যেক তরুণের মনের কথা বলবে। শাকিব খান বলেন,

বাংলাদেশের প্রত্যেক মানুষই একেকজন লিডার। আমা'র দেশের প্রত্যেকের নিজের অবদান রাখার মাধ্যমেও যে দেশটাকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া যায়— সেই গল্পটাই উঠে আসবে এই ছবিতে। একজন শিল্পীই শুধু নন, ভালো মানের সিনেমা দেশের প্রত্যেকটা মানুষ উপভোগ করতে চায়। দেখে গর্বিত 'হতে চায়। আমি বলব, এটি তেমনই একটি সিনেমা। আমা'দের সর্বোচ্চ চেষ্টা থাকবে— সুন্দরভাবে সিনেমাটির শুটিং শেষ করে দর্শকের সামনের উপস্থাপনের।’

ছবিটির শুটিং শুরু হবে মা'র্চের শেষ স'প্ত াহে। ছবিটির মাধ্যমে ‘বীর’ ছবির পর ফের জুটি হচ্ছেন শাকিব-বুবলী। এর আগে শাকিব খানের বাইরে বুবলী চিত্রনায়ক নিরবের স'ঙ্গে ক্যাসিনো ছবির শুটিং শেষ করেন। চুক্তিব'দ্ধ হয়েছেন ‘চোখ’ নামের নতুন একটি ছবিতে। এতে নিরব ছাড়াও থাকছেন নায়ক রোশান। বৃহস্পতিবার ‘লিডার (আমিই বাংলাদেশ)’ নিয়ে বুবলী বলেন, আরটিভি থেকে যখন আমা'র স'ঙ্গে সিনেমাটি নিয়ে যোগাযোগ করে আমি কনসেপ্ট শুনে মুগ্ধ হই।

তাছাড়া এই সময়ে এমন একটি বড় সিনেমা'র উদ্যোগ নেওয়ার জন্য বে'ঙ্গল মাল্টিমিডিয়াকে সাধুবাদ জানাই। গল্পটা অসম্ভব সুন্দর। যখন জেনেছি, পরিচালক তপু খান পাঁচ-ছয় মাস শুধু এই সিনেমা'র গল্পটি নিয়েই কাজ করছেন, আর এটি তার প্রথম সিনেমা, তখন মনে হয়েছে— সত্যি এবার দারুণ কিছু একটা হবে।’ একজন নাট্য নির্মাতার চূড়ান্ত স্বপ্নের জায়গা হচ্ছে সিনেমা নির্মাণ। সেই স্বপ্নই এবার তপু খানের পূরণ হচ্ছে। সেই স্বপ্নের সারথী হচ্ছেন শাকিব ও বুবলী।

তপু খান বলেন, ‘যে স্বপ্নটা আমি এত দিন দেখতাম সেটার আংশিক পূরণ হয়েছে। সুন্দরভাবে শুটিং শেষ করে পুরোটা পূরণ করতে চাই। এ জন্য সবার সহযোগিতা দরকার। আশা করছি, সততা বজায় রেখে সামনে এগোতে পারব। শাকিব খান ভাই এক মাস ধরে যেভাবে সিনেমাটির ভালোর জন্য সহযোগিতা দিচ্ছেন, তাতে আমি সত্যি মুগ্ধ। তিনি আমা'র ওপর বিশ্বা'স রেখেছেন,

আমি সবটুকু মেধা দিয়ে তার বিশ্বা'স রাখার চেষ্টা করব।’ এ সময় শাকিব খান কম বাজেটে নির্মিত মানহীন ছবিরও সমালেোচনা করেন। বলেন, প্রতিবেশী দেশের একটি প্রদেশের ছবি যেখানে তিনশ’ চারশ’ কোটি রোটি রুপিতে নির্মিত হয়। সেখানে আমা'দের দেশে দিনে দিনে ছবির বাজেট কমে আসছে। এটা ফিল্মের জন্য শুভ নয়। ফিল্ম হচ্ছে বিশাল ক্যানভাসের একটা বি'ষয়।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*