আল জাজিরার বিতর্কিত প্রতিবেদনের সামি-তাসনিমসহ ৮ জনকে অব্যা'হতি

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেইসবুকে সরকারবিরোধী পোস্ট দেওয়ার অ'ভিযোগে ডিজিটাল নিরাপ'ত্তা আইনে করা মা'মলায় আট'জনকে অব্যা'হতি দিয়ে আ'দালতে অ'ভিযোগ পত্র দিয়েছে পুলিশ।গত ১৩ জানুয়ারি মা'মলার ত'দন্ত কর্মক'র্তা মহসীন সর্দার আ'দালতে এ অ'ভিযোগপত্র দাখিল করেন। অ'ভিযোগপত্রে এ মা`মলার আ`সামি আল জাজিরা টেলিভিশনে সম্প্রতি প্রচারিত ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার্স মেন’ প্রতিবেদনের অন্যতম প্রধান চরিত্র সামিউল ওরফে জুলকার নাইন সায়ের খানকে অব্যা'হতি দেয়া হয়েছে।

এছাড়া, অব্যা'হতিপ্রা'প্ত অ’পর সাতজন হলেন: ‘অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার্স মেন’ প্রতিবেদনের আরেক চরিত্র নেত্র নিউজ এর তাসনীম খলিল, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের সাবেক পরিচালক মিনহাজ মান্নান, যুক্তরাষ্ট্রপ্রবাসী সাংবাদিক সাহেদ আলম, জার্মানিতে থাকা ব্লগার আসিফ মহিউদ্দিন, আশিক ইমর'ান, স্বপন ওয়াহিদ ও ফিলিপ শুমাখার।

তবে এ মা'মলায় কার্টুনিস্ট আহমেদ কবির কিশোর ও রাষ্ট্রচিন্তার ঢাকার সমন্বয়ক দিদারুল ভুইয়া ও লেখক মুশতাক আহমেদের বি`রু'দ্ধে অ'ভিযুক্ত করা হয়েছে।ম'ঙ্গলবার এ মা`মলার ত'দন্ত প্রতিবেদন আমলে গ্রহণের জন্য দিন ধার্য ছিলো। তবে এ মা'মলার অধিকতর ত'দন্তের জন্য রাষ্ট্রপক্ষ আবেদন করেন। এরপর শুনানি শেষে বুধবার আদেশ দেবেন বলে জানায় আ'দালত।গত বছরের ৫ মে র‌্যাব'-৩ সিপিসি-১ এর ওয়ারেন্ট অফিসার মো. আবু বকর সিদ্দিক বাদী হয়ে ১১ জনের নামে রমনা থানায় ডিজিটাল নিরাপ'ত্তা আইনে একটি মা'মলা করেন।

এছাড়া অজ্ঞাত ৫-৬ জনকে আ'সামি করা হয়েছে।মা'মলার এজাহারে বলা হয়, অ'ভিযুক্ত আ'সামিরা ‘আই এম বাংলাদেশি’ নামে ফেসবুক পেজে রাষ্ট্রের ভাবমূর্তি বা সুনাম ক্ষুণ্ণ করতে বা বিভ্রা'ন্তি ছড়ানোর উদ্দেশ্যে অ’পপ্রচার বা গু'জবসহ বিভিন্ন ধরনের পোস্ট দিয়েছেন, যা জনগণের মধ্যে বিভ্রা'ন্তি সৃষ্টি এবং আইনশৃঙ্খলার অবনতি ঘটায়।

ওই পেজের অ্যাডমিন শায়ের জুলকারনাইন এবং আমি কিশোর, আশিক ইমর'ান, ফিলিপ সমাচার, স্বপন ওয়াহিদ, মোস্তাক আহম্মেদ নামীয় ফেসবুক আইডিসহ পাঁচজন এডিটর পরস্পর যোগসাজশে ফেসবুক পেজটি দীর্ঘদিন পরিচালনা করছেন।আহমেদ কবীর কিশোর, তাসনিম খলিল, জুলকারনাইন, শাহেদ আলম ও আসিফ মহিউদ্দিনের মধ্যে ‘রাষ্ট্রের বি`রু'দ্ধে ষ`ড়যন্ত্রমূলক চ্যাটিং’ এর প্রমাণ পাওয়া গেছে উল্লেখ করে এজাহারে আরো বলা হয়েছে,

তাদের ব্যবহৃত স্যামসাং মোবাইল ফোনে ‘আমি কিশোর’ ফেসবুক অ্যাকাউন্ট লগইন অবস্থায় পাওয়া যায়। আলামত পর্যালোচনা করে রাষ্ট্রবিরোধী পোস্ট, মহা'মা'রি করো’নাভাইরাস, সরকারদলীয় বিভিন্ন নেতার কার্টুন দিয়ে গু'জব ছড়িয়ে জনগণের মধ্যে বিভ্রা'ন্তি সৃষ্টির প্রমাণ পাওয়া যায়। এছাড়াও হোয়াটসঅ্যাপ ও ফেসবুক ম্যাসেঞ্জারে তাসনিম খলিল, শায়ের জুলকারনাইন, শাহেদ আলম, আসিফ মহিউদ্দিনের স'ঙ্গে রাষ্ট্রের বিরু'দ্ধে ষ`ড়যন্ত্রমূলক চ্যা`টিংয়ের প্রমাণ পাওয়া গেছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*