ইরানে হা'মলার প্রস্তুতি নিচ্ছে ইসরাইল!

ইরানে হা'মলা চালাতে জ্যেষ্ঠ নিরাপ'ত্তা ও সেনা কর্মক'র্তাদের স'ঙ্গে আলোচনা করেছেন ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু।

ইসরাইলি সংবাদ মাধ্যম কান নিউজ জানিয়েছে, প্রতিরক্ষামন্ত্রী বেনি গান্টজ, চিফ অব স্টাফ আবিব কোচাবিসহ ইসরাইলের অর্থ ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ কর্মক'র্তাদের স'ঙ্গে বৈঠক করেছেন প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহু। তারা ইরানের বিরু'দ্ধে সম্ভাব্য অ'ভিযান পরিচালনার জন্য অর্থ সরবরাহের বি'ষয়ে আলোচনা করেছেন।

ইসরাইলি গণমাধ্যম জানিয়েছে, ইসরাইলি মন্ত্রীদের এই বৈঠকে ইরানের ইউরেনিয়াম সমৃ''দ্ধকরণ, ইরান পরমাণু অ'স্ত্রের উপরকরণ জোগাড় থেকে কয়েক স'প্ত াহ দূরে বলে যুক্তরাষ্ট্রের সতর্কতা, ইরানের স'ঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের পরমাণু চুক্তিতে ফেরা, ভারতে ইসরাইলি দূতাবাসের পাশে বো'মা হা'মলাসহ ইরানের বিভিন্ন ‘প্রতিশোধমূলক প্রচেষ্টা’র বি'ষয়ে আলোচনা হয়েছে। সূত্র:মিডল ইস্ট মনিটর।

এদিকে ইরানের ইসলামী বিপ্লবী গার্ড বাহিনী বা আইআরজিসি’র অ্যারোস্পেস ফোর্সের তিনটি ব্যালিস্টিক 'ক্ষেপণাস্ত্র প্রদর্শন করেছে। বুধবার (১০ ফেব্রুয়ারি) রাজধানী তেহরানের আজাদি স্কয়ারে এ প্রদর্শন অনুষ্ঠিত হয়।

‘জুলফিকার বাসির’, ‘দেজফুল’ ও ‘কিয়াম’ মডেলের একটি করে 'ক্ষেপণাস্ত্র সেখানে রাখা হয়। তিনটি 'ক্ষেপণাস্ত্রই ইরানের গু'রুত্বপূর্ণ ব্যালিস্টিক 'ক্ষেপণাস্ত্র হিসেবে বিবেচিত।

ভূমি থেকে ভূমিতে নি'ক্ষেপযোগ্য দেজফুল 'ক্ষেপণাস্ত্রটির পাল্লা এক হাজার কিলোমিটার। ‘জুলফিকার বাসির’ এর পাল্লা হচ্ছে ৭০০ কিলোমিটার। এতে রয়েছে অ’পটিক্যাল ডিভাইস যা দিয়ে সাগরে ভাসমান যানকে সহজে আঘা'তে করা যায়।

এছাড়া ‘কিয়াম’ 'ক্ষেপণাস্ত্রের পাল্লা হচ্ছে ৮০০ কিলোমিটার। ছোড়ার পরও এটিকে নিয়ন্ত্রণ করা যায়। ইরানের কুদস ফোর্সের সাবেক প্রধান কাসেম সোলাইমানি শ’হীদ হওয়ার পর ইরাকে মা'র্কিন ঘাঁটিতে হা'মলায় এই 'ক্ষেপণাস্ত্র ব্যবহার করা হয়েছিল।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*