কোরান তেলাওয়াতের ‘অ’পূর্ব এক কণ্ঠ’ নূরীন মোহা'মেদ সিদ্দিগ

মুসলিম বিশ্বের একেক অঞ্চলে একেক স্টাইলে কোরান তেলাওয়াত করা হয়। তার মধ্যে আফ্রিকান স্টাইল অনন্য। একসময় মধ্যপ্রাচ্যের স্টাইল প্রাধান্য বিস্তার করলেও সোশাল মিডিয়ার কারণে বর্তমানে আফ্রিকার স্টাইলও জনপ্রিয় হয়ে উঠছে। বিবিসির ইসমাইল কুশকুশ তুলে ধরেছেন সুদানের এরকম এক ক্বারি নূরীন মোহা'মেদ সিদ্দিগের তেলাওয়াতের কথা।

নূরীন মোহা'মেদ সিদ্দিগ যখন কোরান তেলাওয়াত করতেন, সারা বিশ্বের মানুষ তার কণ্ঠে খুঁজে পেত বি’ষাদ, হৃদয় স্পর্শ করা আবেগ এবং ব্লু স’'ঙ্গীতের অ’পূর্ব মূর্ছনা। তার অনন্য কণ্ঠস্বর তাকে মুসলিম বিশ্বের জনপ্রিয় সব ক্বারিদের একজনে পরিণত করেছিল।

ফলে গত বছরের নভেম্বর মাসে সুদানে এক গাড়ি দু’র্ঘটনায় ৩৮ বছর বয়সী নূরীন মোহা'মেদ সিদ্দিগ যখন নি’'হত হন তখন পাকি’স্তান থেকে যুক্তরা’ষ্ট্র পর্যন্ত সেই শোক ছড়িয়ে পড়েছিল।টেক্সাসের ইমাম ওমর'’ সোলেইমান টুইট করেন: “বিশ্ব আমা’দের সময়ের সবচেয়ে সুন্দর কণ্ঠগু'’লোর একটিকে হারালো।”

বিভিন্ন ধ’র্মের বি’ষয়ে পড়ান এরকম একজন সুদানি-আমেরিকান শিক্ষক হিন্ড মাক্কি বলেন, তার গু'’ণ ব্যাখ্যা করা খুবই কঠিন। তিনি বলেন, “লোকজন বলে যে তার কণ্ঠে আফ্রিকার আসল পরিচয় পাওয়া যায়। কিন্তু সেটা আসলে কী তা তারা পরিষ্কার করে বলতে পারে না এবং তারা সেটা পছন্দ করে।” তার কোরান তেলাওয়াতকে ব্লুজ স’'ঙ্গীতের স’'ঙ্গে তুলনা করা হয় এবং সেটা কোন আকস্মিক বি’ষয় নয়।

ইতিহাসবিদ সিলভেইন দিওফের মতে পশ্চিম আফ্রিকার দাস মুসলিম’দের প্রার্থনা এবং তেলাওয়াতের স’'ঙ্গে সাহেল অঞ্চল থেকে শুরু করে সুদান এবং সোমালিয়ার মুসলিম’দের তেলাওয়াতের মিল রয়েছে। সেখান থেকেই হয়তো বিশেষ এই আফ্রিকান আমেরিকান স’'ঙ্গীতের জন্ম হয়েছে যা পরে ব্লুজ স’'ঙ্গীতে রূপ নিয়েছে।

ঐতিহ্যগতভাবে কোরান তেলাওয়াত করা হয় গান গাওয়ার মতো করে। বলা হয় ইসলামের নবী এভাবে কোরান পাঠ করার জন্য উৎসাহিত করতেন। তিনি বলেছিলেন, “মানুষের কণ্ঠে কোরানের সৌন্দর্য ফুটে উঠবে।” বিবিসি

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*