খ্রি’স্টধ'র্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধ'র্ম গ্রহণ করলেন ক্রিশ্চিয়ান ব্রিটজম্যান

খ্রি’স্টধ’র্ম ত্যাগ করে ইসলাম গ্রহণের ঘোষণা দিয়েছেন জার্মানির প্রসি'দ্ধ ইউটিউবার ক্রিশ্চিয়ান ব্রিটজম্যান।নিজের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেলে এক ভিডিওতে তিনি মুসলিম হওয়ার বি'ষয়টি প্রকাশ করেন বলে গত ১১ ফেব্রুয়ারি আরবিগণমাধ্যম হুইয়্যাহ প্রেস নিশ্চিত করেছে। এদিকে তাঁর ইসলাম গ্রহণের কারণ নিয়ে পৃথক আরেকটি প্রতিবেদনতৈরি করেছে আলজাজিরা মুবাশির। ১৮ ফেব্রুয়ারির প্রকাশিত ওই প্রতিবেদনে ক্রিশ্চিয়ান ব্রিটজম্যান বলেন, আমি

বড় হয়েছি ইউরোপে, যেখানে সব সময় ইসলামকে একটি নেতিবাচক ধ’র্ম হিসেবে উপস্থাপন করা হয়; যু'দ্ধ,র’ক্তার’ক্তি ও স’ন্ত্রা’সকে জুড়ে দেওয়া হয় ইসলামের স'ঙ্গে। তা ছাড়া এমনিতেই কোনো ধ’র্মের প্রতিই আমা'র বিশেষঅ’নুরাগ ছিল না। এ জন্য কখনো প’রকাল ও মৃ'’ত্যু-প’রবর্তী জীবনকে গু'রুত্ব দিইনি। তবে শৈশবে জার্মানিতে

আমা'র বেশ কিছু মুসলিম বেস্ট ফ্রেন্ড ছিল। তাদের বাড়ি আর আমা'র বাড়ি ছিল পাশাপাশি। সে সুবাদে তাদের স'ঙ্গে দীর্ঘ ও সুন্দর একটা সময় অতিবাহিত করার স্মৃ'তি আছে আমা'র। একই স'ঙ্গে কিছু দিন আগে আমি এক বছরের কাছাকাছিসময় পাকি'স্তানে কাটিয়েছি। এ সময় কয়েকজন সৎ মানুষের স'ঙ্গে আমা'র সাক্ষাৎ হয়। আমি তাঁদের থেকে ইসলামধ’র্ম, মুসলিম সভ্যতা-সংস্কৃতি ও তাঁদের জীবনাচার সম্পর্কে অনেক কিছু জানতে পারি। এক পর্যায়ে অনুভব করতে

থাকি যে ইসলামের স'ঙ্গে আমা'র সুগভীর আ'ত্মিক বন্ধন তৈরি হয়েছে। আমি বুঝতে পারি আমা'র হৃদয় ইসলামকেআরো আপন করে নিতে চায়। তার পরই আমা'র আজকের সি’'দ্ধান্ত (ইসলাম গ্রহণ)। ক্রিশ্চিয়ান জানান, আমিজানি না কিভাবে আমা'র বর্তমান অনুভূ'ত ি বর্ণনা করব? তবে একটি বিশেষ প্রশান্তি অনুভব করছি। আর সবাই আমাকে

যেভাবে শুভকামনা জানাচ্ছে—তাতেও আমি অ'ভিভূ'ত । ক্রিশ্চিয়ান ব্রিটজম্যান নিজের ইসলাম গ্রহণ বি'ষয়কভিডিও ইউটিউবেও প্রকাশ করেন। খুব স্বল্প সময়েই তা অন্তত এক কোটিরও বেশি মানুষ দেখেছে। সামাজিকযোগাযোগ মাধ্যমের নানা প্ল্যাটফর্মে ভিডিওটি দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে। একজন এই নওমুসলিমের কাছে মায়ের জন্য

দোয়া চেয়ে লিখেছেন, আমা'র মা অ’সুস্থ হয়ে হাসপাতালে, আর তুমি নিষ্পাপ, আমা'র মায়ের জন্য তোমা'র দোয়াখুবই দরকার। কারণ ইসলামে নওমুসলিমকে সদ্যভূমিষ্ট নবজাতকের স'ঙ্গে তুলনা করা হয়েছে। তোমা'র দোয়া কবুলহবে, দোয়া করো’। সূত্র: আলজাজিরা মুবাশির ও হুইয়্যাহ প্রেস আরবি। মুবাশির ও হুইয়্যাহ প্রেস আরবি।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*