গ্রে'ফতারের ৫ ঘণ্টা পর রন হক সিকদারের জামিন

এক্সিম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ (এমডি) দুজনকে হ'ত্যাচেষ্টার অ'ভিযোগে করা মা'মলায় সিকদার গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) রন হক সিকদারকে জামিন দিয়েছেন আ'দালত।

আজ (১২ ফেব্রুয়ারি) বেলা সোয়া ৩টার দিকে ঢাকা মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আশেক ইমামের আ'দালত জামিনের আদেশ দেন। এর আগে আজ সকাল ১০টায় দেশে ফেরার পরপরই বিমানবন্দরে তাকে গ্রে'ফতার করা হয়। তিনি দীর্ঘদিন পলাতক ছিলেন।

শুক্রবার দুপুরে তাকে ঢাকা মহানগর হাকিম আ'দালতে হাজির করে পুলিশ। এ সময় গু'লশান থানার হ'ত্যাচেষ্টা মা'মলায় ত'দন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত তাকে কারা'গারে আট'ক রাখার আবেদন করা হয়। অ’পর দিকে তার আইনজীবীরা জামিনের আবেদন করেন। উভয়পক্ষের শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম আশেক ইমাম তার জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন।

সম্প্রতি সিকদার গ্রুপের মালিক জয়নুল হক সিকদারের মৃ'ত্যু হয়েছে। এ কারণে দেশে ফিরেছেন তার ছেলে রন। আজ সকালে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান তিনি। এরপরই তাকে গ্রে'ফতার করা হয়। গ্রে'ফতারের পর তাকে মিন্টু রোডে ডিবি কার্যালয়ে নেওয়া হয়।

গত ২৬ মে সিকদার গ্রুপ অব কোম্পানিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) রন হক সিকদার ও তার ভাই দিপু হক সিকদারের বিরু'দ্ধে রাজধানীর গু'লশান থানায় মা'মলা করে এক্সিম ব্যাংক ক'র্তৃপক্ষ। মা'মলার এজাহারে বলা হয়েছে, গত ৭ মে ঋণের জন্য বন্ধকি সম্পত্তির মূল্য বেশি দেখাতে রাজি না হওয়ায় ব্যাংকের এমডি মোহা'ম্ম'দ হায়দার আলী মিয়া ও অতিরিক্ত এমডি মোহা'ম্ম'দ ফিরোজ হোসেনকে গু'লি করে হ'ত্যার চেষ্টা করা হয়। এছাড়া অ'ভিযুক্ত দুই ভাই বিদেশি নিরাপ'ত্তাকর্মী দিয়ে এক্সিম ব্যাংকের এমডি মোহা'ম্ম'দ হায়দার আলী মিয়া ও অতিরিক্ত এমডি মোহা'ম্ম'দ ফিরোজ হোসেনকে গু'লশানের একটি বাড়িতে আট'কে রেখে নি'র্যাতন এবং সাদা কাগজে স্বাক্ষর নেয়।

করো’নার কারণে নিষে'ধাজ্ঞার মধ্যেই গত ২৫ মে ব্যক্তিগত জেট বিমানে ঢাকা ছেড়ে ব্যাংকক চলে যান দুই ভাই।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*