ঘু'ম হারাম হয়ে গেছে ইহুদিবাদী দেশটির! ফিলিস্তিনি প্রধানমন্ত্রী বলেন, এই সি'দ্ধান্ত ন্যায়বিচার ও মানবতার জয়

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : অধিকৃত পশ্চিমতীর ও অবরু'দ্ধ গাজা উপত্যকায় ইসরাইলি যু'দ্ধাপরাধের বিচার করার অধিকার আন্তর্জাতিক অ’পরাধ আ'দালতের (আইসিসি) রয়েছে বলে সম্প্রতি রুলিং একটি দেওয়ার ঘু'ম হারাম হয়ে গেছে ইহুদিবাদী দেশটির প্রেসিডেন্ট বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর। এ নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রসহ ঘনিষ্ঠ মিত্রদের স'ঙ্গে রাত-দিন শলাপরামর'্শ করে যাচ্ছেন তিনি। নিয়োগ করেছেন আন্তর্জাতিক লবিস্টও। খবর আরব নিউজের।

এ ছাড়া সাবেক মা'র্কিন প্রেসিডেন্ট সিরিয়ার কাছ থেকে দখল করে নেওয়া মালভূমিকে ইসরাইলের অংশ বলে সমর'্থন করলেও নতুন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন তার বিপক্ষে দাঁড়াতে পারেন বলে আভাস দেওয়া হয়েছে।

ফিলিস্তিনে চালানো গণহ'ত্যার বিচারে আইসিসিকে জো বাইডেনের মা'র্কিন প্রশাসন ইসরাইলের পক্ষে লবিং না-ও করতে পারে এ আশঙ্কায় বেশ উৎকণ্ঠায় আছেন নেতানিয়াহু।

এদিকে ইসরাইলের বিরু'দ্ধে দ্রুত পদ'ক্ষেপ নিতে আন্তর্জাতিক অ’পরাধ আ'দালতের কৌঁসুলি ফাতৌ বেনসুদার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ফিলিস্তিন নেতারা।

অবরু'দ্ধ গাজা উপত্যকায় ২০১৪ সালে ইসরাইলি-ফিলিস্তিনি সং'ঘা'তের সময় যু'দ্ধাপরাধের ত'দন্তে সুযোগ করে দিয়েছে আইসির একটি রুলিং। ৫০ দিনের ওই যু'দ্ধে ফিলিস্তিনের উপকূলীয় ছিটমহলটি বিধ্বস্ত করে দেওয়া হয়েছিল। দুই হাজার ২৫১ ফিলিস্তিনি ইসরাইলি হা'মলায় নি'হত হন, যাদের অধিকাংশই বেসামর'িক নাগরিক। এ নিয়ে আইসিসির ত'দন্ত চলছে, অনেক সমালোচনামূলক প্রতিবেদনও হয়েছে।

এর আগে ফিলিস্তিন ভূখণ্ডে যু'দ্ধাপরাধ অ'ভিযোগ ত'দন্তে অনুমতি দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছিলেন ফাতৌ বেনসুদা। বলেছিলেন, সেখানে যু'দ্ধাপরাধ সং'ঘটিত হয়েছে তা ‘বিশ্বা'স করার যৌ'ক্তিক ভিত্তি’ রয়েছে। ইসরাইলের প্রধানমন্ত্রী বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু আইসিসির এই রুলিংয়ের কড়া সমালোচনা করেছেন, অন্যদিকে ফিলিস্তিনি কর্মক'র্তারা একে স্বাগত জানিয়েছেন।

ফিলিস্তিনি প্রধানমন্ত্রী মোহা'ম্ম'দ আশতিয়াহ বলেন, এই সি'দ্ধান্ত ন্যায়বিচার ও মানবতার জয়। ইসরাইল আইসিসির সদস্য নয়। তারা ফিলিস্তিন ভূখণ্ডে আন্তর্জাতিক অ’পরাধ আ'দালতের এখতিয়ারের রুলিংও প্রত্যাখ্যান করেছে।

আইসিসিকে রাজনৈতিক সংস্থা অ্যাখ্যা দিয়ে এর বিচার থেকে নিজেদের নাগরিক ও সেনাদের সুরক্ষা দেওয়ারও প্রতিশ্রুতি দিয়েছে তেলআবিব।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*