ছেলের চিৎকার শুনে দৌড়ে গেলেন মা, মায়ের চিৎকারে পালালেন খামা'র মালিক

লক্ষ্মীপুরের রায়পুরে মুরগির খামা'রের দরজার তালা চু’রির অ’পরা’ধে মিনহাজ (৪) নামের এক শিশুকে বৈ’দ্যুতি’ক শ’ক দেয়ার অ’ভিযো’গ পাওয়া গেছে। বৃহস্পতিবার বিকেলে রায়পুর উপজে'লার কেরোয়া ইউনিয়নের মীরগঞ্জ বাজারের পাশে ইসমাইল বেপারীর বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় মিনহাজের বাবা দিনমজুর জামাল হোসেন বৃহস্পতিবার রাতে খামা'র মালিক তোফায়েল আহমেদের বি’রু’'দ্ধে থা’নায় অ’ভিযো’গ করেছে। আ’হ’ত শিশু মিনহাজকে উ’'দ্ধা’র করে রায়পুর সরকারি হাসপাতালে ভ’র্তি করেছেন তার মা লাভলী।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শিশুর মা লাভলী বলেন, প্রতিদিনের মতো শিশু মিনহাজকে বাড়ির পাশে মীরগঞ্জ বাজারে হাফেজি মা'দ্রাসায় পাঠাই। দুপুরে মা'দ্রাসা ছুটি হলেও সে বাড়িতে না আসায় খোঁজ করি। একপর্যায়ে বাড়ির সামনের মুরগির খামা'রে মিনহাজকে চি’ৎ’কার দিতে শুনলে দৌড়ে গিয়ে আ’হ’তাবস্তায় উ’'দ্ধা’র করি। সে সময় লাভলীর চিৎ’কা’রে খামা'র মালিক তোফায়েল পা’লি’য়ে যান। অ’ভিযো’গ রয়েছে, তোফায়েল গত তিন বছর মিটার না নিয়ে সরাসরি বি’দ্যুতের খুঁ’টি থেকে অ’বৈধ সং’যোগ নিয়ে খামা'রে বিদ্যু’ৎ ব্যবহার করছেন।

এ বি'ষয়ে লাভলী বেগম বলেন, ‌‘তোফায়েল আমা'র ছেলের মাথা ও ঘা’ড়ে বৈ’দ্যু’তিক শ’ক দিয়ে জ’খ’ম করেছেন। আমা'র ছেলে নাকি তার খামা'রের দরজার তালা চু’রি করেছে। ছেলের অবস্থা দেখে আশপাশের লোকজনকে ডা’ক’তে চিৎ’কার দিলে তোফায়েল পা’লি’য়ে যান। এ ব্যাপারে খামা'রি তোফায়েল আহমেদ জানান, মিনহাজ তার খামা'রের দরজার তালা চুরি করেছে। এ কারণে তাকে শ’ক দেয়ার ভ’য় দেখানো হয়েছে। তাকে মা’র’ধ’র করা হয়নি।

কর্মক'র্তাদের কাছ থেকে অনুমতি নিয়েই মিটার ছাড়া খুঁ’টি থেকে সং’যো’গ নিয়ে বিদ্যুৎ ব্যবহার করছেন বলেও জানান তিনি।কেরোয়া ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য সোহেল হোসেন বলেন, ‘শিশুটির মা-বাবা ঘটনাটি জানিয়েছেন। ঘটনাটি ম’র্মা’ন্তি’ক। উভয়প’ক্ষের সি'দ্ধান্তে স্থানীয়ভাবে মী’মাং’সা করা হবে।’ রায়পুর থানার ভারপ্রা'প্ত কর্মক'র্তা (ওসি) আবদুল জলিল বলেন, ‘শিশুর বাবা ঘটনাটি জানিয়েছেন। খোঁজ-খবর নিয়ে প্রয়ো’জনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।’

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*