ছোট ভাই মাকে বলে, ‘আপুকে পেছনের রুমে নিয়ে গেছে এক ভাইয়া’

ভালোবাসা দিবসে রুম ডেটিংয়ের নামে প্রেমিকাকে ধ'র্ষণের অ'ভিযোগে দায়ের করা মা'মলায় প্রেমিক এমর'ান সরদারকে (২১) জেলহাজতে পাঠিয়েছে ঝালকাঠি সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আ'দালত। ম'ঙ্গলবার (১৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে মা'মলার ত'দন্তকারী কর্মক'র্তা ঝালকাঠি থানার উপপরিদর্শক মো. হযরত আলী শহরের পূর্ব চাদকাঠি ব্রাক মোড় এলাকা থেকে ধ'র্ষক এমর'ানকে গ্রে''প্ত ার করে আ'দালতে সোপর্দ করে।

এর আগে, ম'ঙ্গলবার সকালে ঝালকাঠি থানায় নি'র্যাতিতার মা মোসা. দিপা ওরফে আখি বেগম বাদী হয়ে নারী ও শিশু নি'র্যাতন দমন আইন ২০০০ (সংশােধনী) ২০০৩ এর ৯ (১) ধ’রায় মা'মলা নং -১৫ দায়ের করেন।

মা'মলার বিবরণে উল্লেখ করা হয়েছে, ৮মাস পূর্বে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ভিকটিম (১৪) এর সাথে নলছিটির কান্ডপাশা গ্রামের মো. আলমগীর সরদারের ছেলে এমর'ান সরদারের সাথে পরিচয় হয় এবং বিভিন্ন সময় বাদিনীর অজান্তে কথাবার্ত বলে আসছে। গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভ্যালেন্টাইন ডে উপলক্ষে (ভালোবাসা দিবস) বিকেল সাড়ে ৪টায় বাদিনী ও তার স্বামী তাদের মালিকানাধীন চায়ের দোকানে গেলে খালি বাসায় ভিকটিমের সাথে দেখা করতে আসে। রাত ৭টা ৪৫মিনিটের দিকে বাদিনীর দোকানে এসে ছোট ছেলে হৃদয় (৭) বাসায় এক ভাইয়া এসে আপুকে নিয়ে পেছনের রুমে গেছে বলে জানালে বাদিনী দৌড়ে এসে তার মেয়েকে ধ'র্ষণরত অবস্থায় দেখে চিৎকার দেয়। এসময় অ'ভিযুক্ত এমর'ান সরদার দ্রুত পালিয়ে যায় বলে অ'ভিযোগ করেন।

এ বি'ষয়ে ত'দন্তকারী কর্মক'র্তা থানার উপপরিদর্শক মো. হযরত আলী জানায়, আ'সামিকে গ্রে'ফতার করে আ'দালতে সোপর্দ করা হয়েছে। পরবর্তী ত'দন্ত কার্যক্রম অব্য'হত রয়েছে।

ঝালকাঠি থানার ওসি মো. খলিলুর রহমান জানায়, ভিকটিমের মায়ের লিখিত অ'ভিযোগ পেয়েই মা'মলা রুজু করা হয়েছে। পুলিশ দ্রুত অ'ভিযান চালিয়ে আ'সামিকে গ্রে'ফতার করতে সক্ষম হয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*