বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই শুরু, স্ত্রীর বড় বোনের মেয়েকেও রেহাই দেয়নি রুবেল

ময়মনসিংহের তারাকান্দা উপজে'লায় এক কিশোরীকে অ’পহ’রণে’র পর আ’টকে রেখে লা’ল’সার শি’কার করার অ’ভিযো’গে মো. রুবেল মিয়া (৩০) নামে একজনকে গ্রে'’'প্ত ার করেছে পুলিশ।

রুবেল ঈশ্বরগঞ্জ উপজে'লার শিবপুর গ্রামের মৃ'ত আজিম উদ্দিনের ছেলে। সম্প’র্কে রুবেল ওই কিশোরীর খালু। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে আ'দালতের মাধ্যমে তাকে জে’লহা’জতে পাঠানো হয়। এর আগে গতকাল বুধবার মানিকগঞ্জ থেকে তাকে গ্রে'’'প্ত া’র করা হয়। পরে রুবেলের দেওয়া ত’থ্যের ভিত্তিতে নারায়ণগঞ্জ থেকে ভু’ক্তভো’গী কিশোরীকে উ’'দ্ধা’র করে পুলিশ।

তারাকান্দা থানার ভারপ্রা'প্ত কর্মক'র্তা (ওসি) আবুল খায়ের এ তথ্য জানিয়েছেন। ওসি জানান, গেলো বছরের ২০ ডিসেম্বর ওই কিশোরীকে বিয়ের প্র’লোভ’ন দেখিয়ে অ’পহ’রণ করে রুবেল। ঘটনার প্রায় দুই মাস পর গেলো ১৫ ফেব্রুয়ারি মা’ম’লা করেন কিশোরীর বাবা। মাম’লার পর পুলিশ তাকে গ্রে'’'প্ত া’র এবং কিশোরীকে উ’'দ্ধা’র করে।

মা’ম’লার তদ’ন্ত কর্মক'র্তা এসআই আব্দুস সবুর জানান, রুবেল গেলো বছরের অক্টোবর মাসের মাঝামাঝি সময়ে তারাকান্দার ডাকুয়া ইউনিয়নে বিয়ে করেন। বিয়ের দুই মাসের মাথায় তার স্ত্রীর বড় বোনের মেয়েকে বিয়ের প্র’লো’ভনে অ’পহ’র’ণ করে। বি'ষয়টি কিশোরীর পরিবার গো’প’নে মী’মাংসা’র চেষ্টা করেও ব্য’র্থ হয়ে থা’নায় মা’ম’লা করেন।

এসআই আরও বলেন, গ্রে''প্ত ারের পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রুবেল স্বীকার করেছে। আজ বৃহস্পতিবার ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ওই কিশোরীর ফ’রেন’সিক পরীক্ষা করা হয়েছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*