মিথ্যা তথ্য দেয়ায় ক্ষ'মা চাইলেন সালমান

ভুল অ্যাফিডেভিট দেয়ায় আ'দালতের কাছে ক্ষ'মা চেয়েছেন বলিউড সুপারস্টার সালমান খান। ম'ঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারি) যোধপুর দায়রা আ'দালতে তিনি ক্ষ'মা চান।

ভারতীয় সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে, ম'ঙ্গলবার (৯ ফেব্রুয়ারি) সালমানের বহুল আলোচিত কৃষ্ণসার হরিণ হ'ত্যা মামালার শুনানি ছিল। এইদিন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে শুনানিতে হাজির হয়েছিলেন ‘দাবাং’ খ্যাত এই অ'ভিনেতা। এই সময় ২০০৩ সালে একটি এফিডেভিটে তিনি ভুল করে মিথ্যা তথ্য দিয়েছেন বলে জানান। এজন্য তিনি ক্ষ'মা চেয়েছেন।

বার্তা সংস্থা আইএএনএস জানিয়েছে, সালমানের আইনজীবী হাসমিতাল সার্সাওয়াত আ'দালতকে জানান, ২০০৩ সালের ৮ আগস্ট যে এফিডেভিট ভুল করে জমা দেয়া হয়েছে তার জন্য সালমানকে ক্ষ'মা করে দেয়া উচিত।

তিনি বলেন, সালমান ভুলেই গিয়েছিলেন যে তার লাইসেন্স নবায়ন করতে দেওয়া হয়েছে। কারণ তিনি খুবই ব্যস্ত ছিলেন। কিন্তু তিনি ভুলে আ'দালতে বলেছিলেন, তার লাইসেন্স হারিয়ে গেছে।

১৯৯৮ সালে হিন্দি ভাষার ‘হা'ম সাথ সাথ হ্যায়’ সিনেমা'র শুটিং চলাকালীন সালমানের বিরু'দ্ধে অ'ভিযোগ ওঠে যোধপুরের কাছে কঙ্কনী গ্রামে বিরল প্রজাতির কৃষ্ণসার হরিণ শিকার করেছেন তিনি। ভারতের বন্যপ্রাণী আইন অনুযায়ী বিরল প্রজাতির কৃষ্ণসার হরিণ হ'ত্যা দ'ণ্ডনীয় অ’পরাধ। এ বি'ষয়ে একটি অ'স্ত্র মা'মলা দায়ের এবং সালমানকে গ্রে'ফতারও করা হয়। পরবর্তীতে জামিন পান। তবে দীর্ঘ দুই দশক ধরে মা'মলাটি চলছে।

সেই সময় এই অ'ভিনেতা জানান, তার ব'ন্দুকের লাইসেন্স হারিয়ে গেছে। এই বি'ষয়ে মুম্বাইয়ের বান্দ্রা থানায় একটি এফআইআর করেছিলেন তিনি। কিন্তু পরবর্তী সময়ে আ'দালত জানতে পারেন তার লাইসেন্স হারায়নি বরং তিনি সেটি নবায়ন করতে দিয়েছিলেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*