সবই জামায়াত-শিবিরের চক্রা'ন্ত, ওগু'লো সুপার এডিটিং: বললেন সেই চেয়ারম্যান

কুমিল্লা জে'লার লাকসাম উপজে'লায় গোবিন্দপুর ইউনিয়নের নারায়াণপুর গ্রামের মাহফিলে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন শামীম গত ৭ ফেব্রুয়ারি রোববার নিজেই মাহফিলের ম’ঞ্চে উঠে ওয়াজরত অবস্থায় মাওলানা এম হাসিবুর রহমানের মাইক কে’ড়ে নিয়ে অ’শ্লী’ল ভা’ষায় গা’লিগা’লাজ করেন এবং নিজেকে স”ন্ত্রা’সী এবং গু'”ণ্ডা’দের চেয়ারম্যান বলে দা’বি’ করেন। মাহফিলে হু’ঙ্কা’র দেওয়ার কারণ জানালেন সেই চেয়ারম্যান। গতকাল ম'ঙ্গলবার (১০ ফেব্রুয়ারি ) এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন, আমা'র বক্তব্যকে সুপার এডিটিং করা হয়েছে, বিএনপি-জামায়াত আমা'র বি’রু’'দ্ধে চ’ক্রা'’ন্ত করছে।

পরে চেয়ারম্যানের নেতৃত্বে একদল স”ন্ত্রা’সী বাহিনী এসে মাওলানা হাসিবুর রহমানের গাড়ি ভা’ঙচু’র করে। তারপর অবস্থা খা’রা’প হওয়ায় জীবন বাঁ’চাতে মাওলানা হাসিবুর লাকসাম থানা পুলিশকে খবর দেন। পরে পুলিশ এসে হুজুর ও তার সফর স'ঙ্গীদের নিরাপ'দ জায়গায় পৌঁছে দেন। গতকাল সোমবার (৯ ফেব্রুয়ারী) বিকাল ৪টা ৪৭ মিনিটে তার ফেসবুকের ভেরিফাইড পেজে মাওলানা হাসিবুর রহমান গাড়ি ভা’ঙচু’রের ছবিসহ চেয়ারম্যানের হা”মলা’র ঘটনাটি তিনি নিজ ভাষায় বর্ণনা করেন এবং পৃথকভাবে ওই ঘটনার একটি প্রত্যক্ষ ভিডিও আপলোড করেন। এতে মুহূর্তেই তা ভা’ই’রা’ল হয়ে যায়।

সন্ধ্যা ৭টায় এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মাওলানা হাসিবুরের মাহফিলে হু”ঙ্কা’র দেওয়ার স্ট্যাটাসটিতে লাইক পড়ে ১২ হাজার,কমেন্ট পড়ে ২ হাজার এবং বিভিন্ন জন শেয়ার করে ২ হাজার ২শটি। অ’পর দিকে হা'মলার ভিডিও এই রি’পো’র্ট লেখা পর্যন্ত ৪ হাজার ৫৬৩ জন দেখেন।

স্থানীয় একটি গণমাধ্যম চেয়ারম্যান শামীমকে হু”ঙ্কা’র দেয়ার বি'ষয়ে জানতে চাইলে তিনি বি'ষয়টি স্বীকার করে বলেন, ওই সময় আমি এমন ‘হু’ঙ্কা’র না দিলে মাহফিলে উপস্থিত প্রায় ১০/১২ হাজার লোক আমাকে মে”রে ফেলতো।মাহফিল প’ণ্ড করতে গেলেন কেন, এমন প্রশ্নের জবাবে চেয়ারম্যান শামীম বলেন, নিয়ম অনুযায়ী মাহফিলের অনুমতি নেয়া হয়নি। সূত্র: আমা'দের কুমিল্লা।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*