৩ মাসের বেতন কা'টা গেলো যেসব শিক্ষকদের

৫ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান প্রধানের ৩ মাসের বেতন-ভাতার সরকারি অংশ ক'র্তন করার নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। বেসরকারি শিক্ষক নিবন্ধন প্রত্যায়ন ও ক'র্তৃপক্ষের (এনটিআরসিএ) কাছে ত্রুটিপূর্ণ চাহিদা পাঠানোর কারণে আরও তাদের বেতন-ভাতার সরকারি অংশ ক'র্তন করার নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়। সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালককে প্রতিষ্ঠান প্রধানদের বিরু'দ্ধে ব্যবস্থা নিতে আলাদাভাবে পত্র জারি করে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগ।

শাস্তি পাওয়া প্রধান শিক্ষকরা হচ্ছেন, হবিগঞ্জ জে'লার মাধবপুর উপজে'লার ব'ঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ফরাস উদ্দিন, চুয়াডা'ঙ্গার দামুড়হুদা উপজে'লার বড়বলদিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ইউসুফ আলী, বগু'ড়া জে'লার ধুনট উপজে'লার বাঁশপাতা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোছা. শামীমা সুলতানা, টা'ঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজে'লার বরাটি নরদানা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. সোহরাব আলী মল্লিক, সিলেটের কানাইঘাট উপজে'লার বড়দেশ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. নুর উদ্দিন।

এর আগে গত কয়েকদিনে আরও ১৮ জন প্রতিষ্ঠান প্রধানের তিন মাসের বেতন ক'র্তনের নির্দেশ দেয় মন্ত্রণালয়। সোমবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) পর্যন্ত মোট ২৩ জন শিক্ষকের বিরু'দ্ধে এ শাস্তির নির্দেশ দেওয়া হলো। ২০১৮ সালের ১২ জুনের বেসরকারি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের (স্কুল ও কলেজ) জনবল কাঠামো ও এমপিও নীতিমালা অনুযায়ী নতুন বৃ'দ্ধি করা পদে নিয়োগের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় থেকে আলাদা আদেশ জারি করার বিধান ছিল। বৃ'দ্ধিপ্রা'প্ত নতুন পদে নিয়োগের জন্য আলাদা আদেশ জারির আগেই বৃ'দ্ধি পাওয়া নতুন পদকে শূন্যপদ দেখিয়ে ২০১৯ সালের দ্বিতীয় নিয়োগ চক্রের মাধ্যমে শিক্ষক নিয়োগের জন্য এনটিআরসিএতে ত্রুটিপূর্ণ চাহিদা পাঠানো হয়।

এনটিআরসিএ ক'র্তৃক মেধা তালিকায় উত্তীর্ণ হয়ে সুপারিশ পাওয়ার পরও ত্রুটিপূর্ণ চাহিদার কারণে সুপারিশপ্রা'প্ত দুই শিক্ষক এমপিওভুক্ত 'হতে পারেননি। গত কয়েকদিনে যে ১৮ জনের শাস্তি : শাস্তি পাওয়া প্রতিষ্ঠান প্রধানরা হচ্ছেন, পিরোজপুর সদর উপজে'লার বাইনখালী মোজাহার মল্লিক মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শাহ আলম, রাজশাহী মহানগরীর মতিহার এলাকার বালাজান নেসা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. তাজুল ইসলাম এবং কুড়িগ্রামের উলিপুর উপজে'লার বকসীগঞ্জ রাজিবিয়া উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মেহেরুজ্জামান।

সিরাজগঞ্জ সদর উপজে'লার বাহুকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মনোরঞ্জন সাহা, চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজে'লার বাগান বাজার উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চৌধুরী মো. উমাম উদ্দিন নুরী, জামালপুর জে'লার মেলান্দহ উপজে'লার বাঘডোবা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সৈয়দ মিজান উল মওলা, ঝিনাইদহ জে'লার মহেশপুর উপজে'লার বি আর কে এস মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. জামিরুল ইসলাম, বরিশালের হিজলা উপজে'লার বদন টুনি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. ইব্রাহিম খলিল, বগু'ড়া সদর উপজে'লার আলোর মেলা কেজি অ্যান্ড হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক শ্রী সুশীল কুমা'র পাল, খাগড়াছড়ির দিঘীনালা উপজে'লার অনাথ আশ্রম আবাসিক উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. সিরাজুল হক, বাগেরহাট জে'লার কচুয়া উপজে'লার আন্ধারমানিক মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক পি’টুন মিত্র, পটুয়াখালীর দুমকি উপজে'লার আংগারিয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বাবুল চন্দ্র লস্কর।

পিরোজপুর সদর উপজে'লার এপেক্স ক্লাব নৈশ নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মীর নজরুল ইসলাম, টা'ঙ্গাইল জে'লার মধুপুর উপজে'লার আহা'ম্ম'দ আলী মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক এ কে এম হা'মিদ, লক্ষ্মীপুর জে'লার রামগঞ্জ উপজে'লার আলীপুর আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. সেলিম এবং যশোরের মনিরামপুর উপজে'লার আহম'দ আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. আতিয়ার রহমান। এছাড়া তিন মাসের বেতন ক'র্তনের নির্দেশ দেওয়া কলেজের অধ্যক্ষ দুজন হলেন, রংপুরের বদরগঞ্জ উপজে'লার উপজে'লার বাদগঞ্জ মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ বিমলেন্দু সরকার এবং বগু'ড়ার কাহালু উপজে'লার আজিজুল হক মোমোরিয়াল ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ মো. মোজাফফর হোসেন।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*