টাইমস টিভি ডেস্কঃ নিজের আত্মম’র্যাদার কথা চিন্তা করে হলেও মন্ত্রীর পদ থেকে ওবায়দুল কাদেরের পদত্যাগ করা উচিত বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাস’চিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী আহমেদ। মঙ্গলবার (১৫ সেপ্টেম্বর) বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

বিএনপি চিরাচরিত মি’থ্যাচার করছে বলে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সাম্প্রতিক মন্তব্যের জবাবে রিজভী বলেন, বিএনপি বলেছে এই স’রকার করো’না রো’গীদের পরিসংখ্যানে ৮২ হাজার রো’গীর নাম বাদ দিয়েছে।

তিনি (কাদের) বলেছেন, ৮২ হাজারের ত’থ্য কোথায় পেয়েছেন এবং এই তালিকার ত’থ্য জানতে চেয়েছেন। ওবায়দুল কাদের সাহেবের উদ্দেশ্যে বলতে চাই- বানোয়াট এবং অসত্য কথা বলার ফেরিওয়ালা আপনারা। আপনার অবগতির জন্য জানাচ্ছি, গত ১১ সেপ্টেম্বর ২০২০ তারিখে বহুল প্রচারিত ইংরেজি পত্রিকা ‘নিউ এজ’র প্রধান শিরোনাম দেখু’ন। ৮২ হাজার নয়, ৮৪ হাজার করো’না রো’গীকে স’রকারের ডাটাবেজে অন্তর্ভুক্ত করা হয়নি।

‘ডিজি হেলথ সার্ভিস (স্বা’স্থ্য অধিদফতর) কি স’রকারি নাকি বি’রোধীদলীয় প্রতিষ্ঠান? এটি প্রত্যক্ষভাবে একটি স’রকারি প্রতিষ্ঠান। তাদের ডাটাবেজ থেকে ৮৪ হাজার রো’গীর নাম হা’রিয়ে গেল কী’ভাবে? এই ত’থ্যটি এমন একটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে যেটি জনগণের নিকট বিশ্বা’সযোগ্য গণমাধ্যম।

এই সংবাদ প্রতিবেদনে আরও বলা হয়েছে, স’রকারি ডাটাবেজে এলাকাভিত্তিক করো’নার সংখ্যা ও সং’ক্র’মণের হারেরও তেমন ত’থ্য নেই। এখন আমি বলতে চাই- উল্লিখিত পত্রিকাটি পাঠ করে ওবায়দুল কাদের সাহেবের নিজের আত্মম’র্যাদার কথা চিন্তা করে হলেও এই মুহূর্তে পদত্যাগ করা উচিত। জনসম্মুখে ডাহা মি’থ্যা বলার পর একজন মন্ত্রীর কোনোক্রমে দায়িত্বে থাকা তার ম’র্যাদার সাথে বেমানান।’

বিএনপির এই মুখপাত্র বলেন, স’রকার শুরু থেকেই করো’নায় আ’ক্রান্ত ও মৃ’ত্যুর সংখ্যা নিয়ে মি’থ্যাচার করেছে। জাতির সামনে প্রকৃত ত’থ্য তুলে ধ’রা হচ্ছে না। করো’নার টেস্ট কমিয়ে দিয়ে রো’গী নেই বলে জনগণকে ধাপ্পা দিয়ে বি’পদের মধ্যে ঠেলে দিচ্ছে।

এই ধাপ্পাবাজির উদ্দেশ্য হচ্ছে করো’না থেকে জনদৃষ্টিকে অন্যদিকে সরিয়ে রাখা। নিজেদের ব্য’র্থতা ঢাকা দেয়ার জন্য স’রকারি প্রতিষ্ঠানগুলোকেও মি’থ্যাচারের যন্ত্র বানিয়েছে স’রকার। করো’নার সং’ক্র’মণ ও মৃ’ত্যুর সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে। এখনো আ’ক্রান্ত ও মৃ’ত্যু সংখ্যার মধ্যে কোনো আশার আলো দেখা যাচ্ছে না।

তিনি বলেন, স’রকারি হিসাবে গতকাল করো’না আ’ক্রান্ত হয়ে মৃ’ত্যুর সংখ্যায় চীনকে ছাড়িয়ে গেছে বাংলাদেশ। দৈনিক সং’ক্র’মণের পাশাপাশি দৈনিক মৃ’ত্যুতেও অনেক দেশের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে বাংলাদেশ। দেশের মানুষের আশ’ঙ্কা, এভাবে চলতে থাকলে এদেশে করো’নার সং’ক্র’মণ ও মৃ’ত্যুর হার ভ’য়াবহ রূপ ধারণ করবে। দেশের স্বা’স্থ্য ব্যবস্থা ধ্বং’সের দ্বারপ্রান্তে। করো’নায় মৃ’ত্যুবরণ ও সং’ক্র’মণে হাসপাতাল কিংবা কবরস্থানেও যেন ঠাঁই নেই।

রিজভী বলেন, খিঁচুড়ি রান্না প্রশিক্ষণের জন্য স’রকারি কর্মক’র্তাদের বিদেশ পাঠানো হচ্ছে। ইতোপূর্বে পুকুর খননের প্রশিক্ষণের জন্য স’রকারি কর্মক’র্তাদের বিদেশ পাঠানো হয়েছিল। এছাড়া পাবদা মাছ চাষের প্রশিক্ষণ নিতে স’রকারি কর্মক’র্তারা বিদেশে গিয়েছিলেন।

এসব অ’ভিনব ও হাস্যকর তামাশা কেবল শেখ হাসিনার আমলেই সম্ভব। আবহমানকাল ধরেই উল্লিখিত বি’ষয়গু’লি সাধারণ মানুষের রপ্ত। অথচ সেইসব বি’ষয়ে স’রকারি কর্মক’র্তাদের বিদেশ পাঠানোতে একটি প্রবাদ মনে পড়ে যায়- ‘স’রকারি মাল দরিয়া মে ঢাল’। মো’টা অংকের বৈদেশিক মুদ্রা খরচ করে ফা’লতু কাজে স’রকারি কর্মক’র্তাদের বিদেশ পাঠানো মূ’লত মিডনাইট নির্বাচনে সহায়তা করার জন্য স’রকারি কর্মক’র্তাদের উপঢৌকন দেয়া।

তিনি বলেন, যে স’রকারের আমলে একটা বালিশের দাম সাড়ে সাত হাজার টাকা এবং একজন রো’গীকে আড়াল করতে সাড়ে সাঁইত্রিশ লাখ টাকার পর্দা লাগে, সেই স’রকার যে আগাগোড়াই লু’টপাটের চেতনায় অনুপ্রা’ণিত তা বলার অ’পেক্ষা রাখে না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here