নো-য়াখালীর বেগমগ-ঞ্জ উপজে’লার একলা’শপুর ই-উনিয়নে অ-নৈতিক কাজের অ’পবাদ দিয়ে বি-ব-স্ত্র করে নি-র্যাতন ও -ধ-র্ষ-ণের চে-ষ্টার ঘ-টনার পর থেকে এলাকা ছাড়া ওই নি-র্যাতি-তাকে (৩৬) উ-দ্ধার করেছে পু-লিশ।বেগমগ-ঞ্জ থানার অ-ফিসার ইন-চা-র্জ (ওসি) মো.হারুন উর রশীদ জানান, পু-লিশ বত-র্মানে ঘ-টনাস্থ-লে রয়েছে। এ ঘ-টনায় প্র-ধান আ’সামি বাদ-লকে ঢাকা থেকে এবং দেলোয়ারকে না-রায়ণগ-ঞ্জ থেকে গ্রে-ফতার করেছে র‌্যা’ব।

গতকাল রোববার দুপুরের দিকে সেই নি-র্যা-ত-নের সেই ভি-ডিও সামাজিক যো-গাযোগ মাধ্যম ফে-সবুকে প্র-কাশের পর ভাই-রাল হয়ে। তাতে টনক নড়ে স্থা-নীয় প্র-শাসনের।গত ৩২ দিন অ-ভিযু-ক্ত স্থা-নীয় বগাটেরা গৃ-হব-ধূর পরিবারকে অ-বরু-দ্ধ করে রাখলেও ঘ-টনা থেকে যায় স্থা-নীয় এলা-কাবাসী ও পু’লিশ প্র-শাসনের অ-গোচরে!স্থা-নীয়রা বলছে, গত মাসের (২ সেপ্টেম্বর) উপজে’লার এ-কলা’শপুর ইউ-নিয়নের ৯নং ওয়া-র্ডের খালপাড় এলাকার নূর ইস-লাম মিয়ার বাড়িতে এ ঘ-টনা ঘটে।

আরও পড়ুন=ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের গতকাল (৪ অক্টোবর) রোববারের ম্যাচগুলো ছিল রোমাঞ্চে ভরা। ২০১৯/২০ মৌসুমের লিগ চ্যাম্পিয়ন লিভারপুলের জালে সাতবার বল পাঠিয়েছে ইংলিশ ক্লাব অ্যাস্টন ভিলা। প্রিমিয়ার লিগ নামকরণের পর অ্যানফিল্ডের বাইরে ৬-১ গোলের ব্যবধানের হারের রেকর্ডটাই ছিল এতদিন লিভারপুলের সর্বোচ্চ ব্যবধানের হার। ২০১৫ সালে স্টোক সিটির মাঠে এই ব্যবধানে হেরেছিল তারা। এর পাঁচ বছর পর গতকাল অ্যাস্টন ভিলার মাঠে ৭-২ গোলের ব্যবধানে লজ্জার হারের মুখ পড়েন সালাহ-মানেরা।

এদিন ম্যাচের চার মিনিটে গোল করে যাত্রা শুরু করেন ওলি ওয়াটকিনস। এরপর ২২ মিনিটে এসে লিড দ্বিগুণ করেন ওয়াটকিনসই। আর তার দুই গোলের যোগানদাতা জ্যাক গ্রিলিশ। এরপর ম্যাচের আধা ঘণ্টা পেরুতেই মোহাম্ম’দ সালাহ এক গোল করে লিভারপুলকে ম্যাচে ফেরানোর ইঙ্গিত দেন মোহাম্ম’দ সালাহ। ৩৩ মিনিটে সালাহর গোলে ব্যবধান ২-১’এ নামিয়ে আনেন সালাহ। তবে খুব বেশি সময় ব্যবধান ২-১ থাকেনি,

কেননা ভিলা পার্কে এদিন লিভারপুলকে লজ্জার হার উপহার দিতে যেন বদ্ধপরিকর ছিল অ্যাস্টন ভিলা। ম্যাচের ৩৫ মিনিটে জন ম্যাকগিনের জো’রালো শট ভার্জিল ভ্যান ডাইকের শ’রীরে লেগে বাক নিলে পরাস্থ হন অল রেড গোলরক্ষক আদ্রিয়ান। এদিন যেন গোলের নে’শা পেয়ে বসে অ্যাস্টন ভিলাকে। তাই তো মরিয়া হয়ে আক্রমন করতে থাকে।

৩৯তম মিনিটে এসে ট্রেজেগুয়েটের অ্যাসিস্ট থেকে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করেন ওলি ওয়াটকিনস। শেষ পর্যন্ত প্রথমার্ধ শেষ হয় অ্যাস্টন ভিলা ৪-১ গোলের ব্যবধানে এগিয়ে থেকে। বিরতি থেকে ফিরলেও আ’ক্রমণাত্মক মেজাজ আরও বাড়িয়েই মাঠে ফেরে অ্যাস্টন ভিলা। দ্বিতীয়ার্ধের ৫৫ মিনিটে জ্যাক গ্রিলিশের তৃতীয় অ্যাসিস্ট থেকে ৫ম গোলটি আসে রস বার্কলির পা থেকে। পাঁচ গোল হজম করেও ম্যাচের হাল তখনও ছাড়েনি

অল রেডরা। ম্যাচের সময় তখন এক ঘণ্টা ছুঁয়েছে রবার্তো ফিরমিনোর দুর্দান্ত এক অ্যাসিস্ট থেকে বল জালে জড়ান মোহাম্ম’দ সালাহ। ম্যাচের স্কোরকার্ড বলছে তখনও ভিলা ৫-২ গোলের ব্যবধানে এগিয়ে। তবে এর আগে তিনটি অ্যাসিস্ট করলেও গোলের দেখা পাননি জ্যাক গ্রিলিশ তাই তো এবার তার পালা

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here